অভিমান করে ঢাবি ছাত্রীর আত্মহত্যা


duঢাকা: ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। গতকাল বুধবার সকালে রাজধানীর পূর্ব নাখালপাড়ার একটি বাসা থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশটি হস্তান্তর করা হয়।

নিহত মহসিনা মেধা ঢাবির আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী।

এ ব্যাপারে স্বজনদের বরাত দিয়ে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার ওসি আব্দুর রশিদ জানিয়েছেন, মেধা পড়ালেখা বন্ধ করে গতকাল মঙ্গলবার গভীর রাত পর্যন্ত ফেসবুক চালাচ্ছিলেন। রাত আড়াইটার দিকে তার মা তাকে ফেসবুকে দেখে গালমন্দ করেন। এরপর তিনি নিজের কক্ষে ঘুমিয়ে যান। পরিবারের সদস্যরা ভোরে উঠে দেখেন, মেধার নিথর দেহ শোবার ঘরের ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছে।

ওসি বলেন, ধারণা করা হচ্ছে মায়ের বকুনিতে অভিমান করে মেধা আত্মহত্যা করেছেন। এছাড়া পরিবারের কোনো অভিযোগও নেই। এজন্য ময়নাতদন্ত ছাড়া মেধার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আমজাদ আলী বলেন, মেধা পূর্ব নাখালপাড়ায় তার পরিবারের সঙ্গে থাকতেন। তার গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে। মৃতদেহ কুমিল্লায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে তারা জানতে পেরেছেন।

ঢাবির আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এহসানুল হক জানান, ‘বিভাগের কয়েকজন শিক্ষার্থী তাকে জানিয়েছে মেধা নামে এক শিক্ষার্থী পারিবারিক কারণে আত্মহত্যা করেছে। তবে তারা অফিসিয়ালি এখনও কিছু জানেন না।

Related posts