সাতক্ষীরার ইউসুফ হারুন স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব হলেন

ডেস্ক নিউজ: স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব হলেন সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান শেখ ইউসুফ হারুন।

উল্লেখ্য, জনপ্রশাসনে ৮৬ ব্যাচের কর্মকর্তা শেখ হারুন একজন সৎ এবং দক্ষ আমলা হিসেবে পরিচিত। তিনি দীর্ঘদিন সরকারের জনপ্রশাসনের অত্যন্ত গুরুত্ত্বপূর্ণ বিভাগ এপিডি অনুবিভাগ এর অতিরিক্ত সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। এপিডি শাখা থেকেই ক্যাডার কর্মকর্তাদের পদায়ন, বদলি, পদোন্নতিসহ সব ধরনের কার্যক্রমের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। সুপিরিয়র সিলেকশন বোর্ডের (এসএসবি) বৈঠকেও উপস্থিত থাকেন এপিডি। যদিও তিনি এসএসবির সদস্য নন, কিন্তু তাকে এর প্রস্তাব-সিদ্ধান্তসহ সব নথিপত্র সংরক্ষণ ও সাচিবিক দায়িত্ব পালন করতে হয়। এসএসবিকে সবকিছু বুঝিয়ে দিতে হয় তাকে। এসব কারণে প্রশাসনে গুরুত্বপূর্ণ পদ হিসেবে বিবেচিত এপিডি। শেখ ইউসুফ হারুন এর আগে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মহাপরিচালক-১ (অতিরিক্ত সচিব), ঢাকা ও গোপালগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন গুরুত্ত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার দরগাপুর গ্রামের সন্তান।

এদিকে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগে নতুন সচিব নিয়োগ দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে মন্ত্রিপরিষদ সচিব (সংস্কার ও সমন্বয়) হয়েও এসেছেন নতুন কর্মকর্তা।

এসব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব নিয়োগ দিয়ে বুধবার (২৬ জুন) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে আদেশ জারি করা হয়েছে।

বিয়াম-এর মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) শেখ মুজিবুর রহমানকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার), সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেনকে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব করা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়ন সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) শামসুল আরেফিন আগামী ২৯ জুন, শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব জি এম সালেহ উদ্দিন আগামী ৩০ জুন অবসরোত্তর ছুটিতে (পিআরএল) যাবেন।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব মিজানুর রহমান গত ১৪ জুন পিআরএলে যান।

Related posts