সর্বশেষ সংবাদ-
ফ্লাইওভারের গার্ডারে চাপা পড়ে নিহত রুবেলের লাশ নিতে চান ৭ স্ত্রী!ফুটবলে অনির্দিষ্টকালের জন্য ভারতকে নিষিদ্ধ করলো ফিফা২৫ আগস্ট হরতালবরগুনার ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদলিচা শ্রমিকরা দিনপ্রতি ৩০০ চাইলেও মালিকপক্ষের প্রস্তাব ১৩৪ টাকাকলারোয়ায় ইঞ্জিন ভ্যানের চাকায় পিষ্ট হয়ে শিশুর মৃত্যুদেবহাটা ইঞ্জিন ভ্যান চুরির ২৪ ঘন্টায় ২ চোরসহ ভ্যান উদ্ধারসাতক্ষীরায় ইউপি চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সম্পত্তি দখল চেষ্টা!শ্যামনগরের চাঞ্চল্যকর তাজকিয়া হত্যা মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতারলাইসেন্স বিহীন ক্লিনিকে ভর্তি করে স্ত্রীকে হত্যার পর শ্যালক ও শ্বশুরকে মিথ্যা মামলায় হয়রানি

ফ্লাইওভারের গার্ডারে চাপা পড়ে নিহত রুবেলের লাশ নিতে চান ৭ স্ত্রী!

ভিন্নরকম খবর: রাজধানীর উত্তরার জসীমউদ্দিনে নির্মাণাধীন ফ্লাইওভারের গার্ডারে চাপা পড়ে নিহত রুবেল হাসানের (৬০) মরদেহ নিতে মর্গে এসেছেন ৭ নারী। তারা প্রত্যেকেই দাবি করছেন, রুবেল তার স্বামী।

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গের সামনে এ চিত্র দেখা যায়। স্ত্রীরা সবাই রুবেলের মরদেহ দাবি করছেন। তাদের সঙ্গে সন্তানরাও এসেছে। তবে স্ত্রীদের একজন আরেকজনের বিয়ের ব্যাপারে কিছু জানেন না, এমনকি এমনটি হতেই পারে না বলেও দাবি করছেন।

রুবেলের স্ত্রী দাবি করে হাসপাতালে আসা নারীরা হলেন, নারগিস বেগম, রেহেনা বেগম, শাহিদা বেগম, সালমা আক্তার পুতুল ও তাসলিমা আক্তার লতা। এই পাঁচজন মর্গের সামনে এসে মরদেহ দাবি করছেন। আরেকজনের নাম টিপু। তিনি মারা গেছেন। রুবেলের সন্তান জন্ম দেওয়ার সময় তার মৃত্যু হয়। এছাড়া বাকি একজনের নাম জানা যায়নি।

এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে পুলিশ কিংবা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে, একাধিক স্ত্রী মর্গের সামনে উপস্থিত হওয়ায় মরদেহ নিয়ে যাওয়া এবং পরে অর্থ-সম্পত্তি নিয়ে জটিলতা সৃষ্টির আশঙ্কা করছেন স্বজনরা।

সোমবার রাজধানীর উত্তরায় নির্মাণাধীন বিআরটি প্রকল্পের গার্ডার চাপায় ৫ জনের প্রাণ যায়। এদের মধ্যে পরিবারের কর্তা রুবেলও নিহত হন। তিনি গাড়িটি চালাচ্ছিলেন।

গাড়িটিতে মোট সাতজন ছিলেন। পাঁচজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান হৃদয় ও রিয়া দম্পতি। নিহতরা হলেন, হৃদয়ের বাবা রুবেল, হৃদয়ের শাশুড়ি ফাহিমা খাতুন (৪০), ফাহিমার বোন ঝরণা আক্তার (২৮) এবং ঝণার দুই সন্তান জান্নাত (৬) ও জাকারিয়া (২)।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
ফুটবলে অনির্দিষ্টকালের জন্য ভারতকে নিষিদ্ধ করলো ফিফা

খেলার খবর: ভারতকে ফুটবল থেকে নিষিদ্ধ করেছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা। ফুটবলীয় কার্যক্রমে তৃতীয় পক্ষের প্রভাব খাটানোর অভিযোগে ভারতীয় ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশন (এআইএফএফ) এই শাস্তির কবলে পড়ে।

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করে ফিফা।

এই নিষেধাজ্ঞার ফলে আগামী অক্টোবরে ভারতে অনুষ্ঠেয় অনূর্ধ্ব-১৭ নারী বিশ্বকাপও আয়োজন করতে পারবে না ভারত। শিগগিরই এই টুর্নামেন্টের ভবিষ্যৎ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে ফিফা।

এক বিবৃতিতে সংস্থাটি বলেছে, ব্যুরো অব ফিফা কাউন্সিল সর্বসম্মতভাবে এআইএফএফকে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কারণ এই সংস্থায় তৃতীয় পক্ষের অনুচিত প্রভাবের ফলে ফিফা সনদের পরিষ্কার লঙ্ঘন হয়েছে।

কয়েক মাস আগেই এআইএফএফের সংবিধান সংশোধন করে দ্রুত নির্বাচন করার জন্য ৩ সদস্যের কমিটি গড়ে দিয়েছিলেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত। স্বয়ংশাসিত ক্রীড়া সংস্থায় তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ ফিফার আইন বিরুদ্ধ। তাই এই কমিটির হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে কড়া সিদ্ধান্ত নিল ফিফা।

ফিফা এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘এখন এআইএফএফ এর ক্ষমতায় রয়েছে কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স। এর বদলে যেদিন থেকে নির্বাচনের মাধ্যমে তৈরি হওয়া কমিটি এআইএফএফ-এর দৈনন্দিন কাজকর্ম দেখতে শুরু করবে, সেদিন থেকে এই নির্বাসনের শাস্তি উঠে যাবে।’

ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, চলতি মাসের শুরুর দিকে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট অবিলম্বে নির্বাচন অনুষ্ঠানের নির্দেশ দিয়েছিলেন। এবং বলেছিল যে নির্বাচিত কমিটি তিন মাসের জন্য একটি অন্তর্বর্তী সংস্থা হবে। ফুটবল ফেডারেশনের ওপর আদালতের এই খরবদারি ভালোভাবে নেয়নি ফিফা। বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ আদালতের খবরদারিকে তাদের সনদের পরিস্কার লঙ্ঘন হিসেবে গণ্য করে।

ফিফার আইন অনুযায়ী, সদস্য ফেডারেশনগুলোকে তাদের নিজ নিজ দেশে আইনি ও রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ থেকে মুক্ত থাকতে হবে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
২৫ আগস্ট হরতাল

২৫ আগস্ট হরতাল

কর্তৃক Daily Satkhira

রাজনীতির খবর: জ্বালানি তেল ও ইউরিয়া সারের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহার এবং গণপরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে আগামী ২৫ আগস্ট সারাদেশে অর্ধদিবস হরতালের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) দুপুরে রাজধানীর পল্টন মোড়ে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে এ ঘোষণা দেন জোটের সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ।

বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃত্ব দেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক কমরেড হারুন চৌধুরী, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের মহাসচিব হারুন আল রশীদ খাঁন, সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম প্রমুখ।

জোটের সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ বলেন, জ্বালানি তেলের মূল্য ও সারের দাম কমানোর দাবিতে ২৫ আগস্ট সারাদেশে সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত হরতাল পালন করা হবে। রাতের আঁধারে ভোট ডাকাতির সরকার গণতান্ত্রিক বাম ঐক্যের কথায় কর্ণপাত করেননি। তাই গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য এ দেশের সাধারণ মানুষের স্বার্থরক্ষার্থে, কৃষি পণ্য, শিল্প পণ্য, পরিবহন ব্যয় ও চিকিৎসা ব্যয় বৃদ্ধির প্রতিবাদে হরতাল ডাকছে। আশা করি এ দেশের সাধারণ মানুষ তাদের স্বার্থরক্ষার্থে এই হরতাল পালন করবে।

এর আগে, দুপুর ১২টার দিকে আট দফা দাবিতে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় অভিমুখে বিক্ষোভ-পদযাত্রা শুরু করে বাম গণতান্ত্রিক জোট। সাড়ে ১২টায় শাহবাগ মোড়ে পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে এগোতে চাইলে বাম জোটের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
বরগুনার ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদলি

দেশের খবর: বরগুনায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা করার ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহরম আলীকে বরগুনার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে বরিশালের রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ে বদলি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রেঞ্জ ডিআইজি এস এম আক্তারুজ্জামান। তিনি জানান, সার্বিক দিক বিবেচনা করে ও তদন্তের স্বার্থে মহরম আলীকে বরিশালে আমার কার্যালয়ে নিযুক্ত করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার বঙ্গবন্ধু স্মৃতি কমপ্লেক্সে ফুল দিতে যান জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে ফেরার সময় শিল্পকলা অ্যাকাডেমির সামনে পৌঁছলে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত গ্রুপের সদস্যরা তাদের ওপর হামলা চালান। এতে দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শহরজুড়ে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ থামাতে পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনায় সোমবার রাতে বরগুনা জেলা পুলিশ তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) এস এম তারেক রহমানকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বরগুনা জেলা পুলিশ।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পাথরঘাটা সার্কেল) তোফায়েল হোসেন, পুলিশ পরিদর্শক (পাবলিক রিলেশন অফিসার) শাহাবুদ্দীন খান।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
চা শ্রমিকরা দিনপ্রতি ৩০০ চাইলেও মালিকপক্ষের প্রস্তাব ১৩৪ টাকা

দেশের খবর: দৈনিক মজুরি ১২০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০০ টাকা করার দাবি জানিয়ে শনিবার (১৩ আগস্ট) থেকে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছেন সারা দেশের চা শ্রমিকেরা।

তবে এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মালিকপক্ষ শ্রমিকদের বেতন ১৪ টাকা বাড়িয়ে ১৩৪ টাকা করার প্রস্তাব দিয়েছে।

মালিকপক্ষের এই প্রস্তাব প্রত্যাখান করে শ্রমিকেরা বলছেন, তারা ৩০০ টাকা দৈনিক মজুরির দাবিতে অনড়।

এদিকে বাংলাদেশ টি অ্যাসোসিয়েশন (বিটিএ) চলতি মাসে শ্রমিকদের জন্য চাল বা গম বরাদ্দের পদক্ষেপ নেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়কে। তারা শ্রমিকদের জন্য প্রতিকেজি ২৮ টাকা দরে গমের পরিবর্তে একই পরিমাণ চাল বরাদ্দের অনুরোধ করেছে।

সরকার চলতি অর্থবছরে চা শিল্পখাতের জন্য প্রতিকেজি ১৪ টাকা দরে ১৮০০ টন গম বরাদ্দ দিয়েছে।

জাতীয় শিল্প নীতি-২০১৬ এর অধীনে চা খাত একটি অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত শিল্প খাত। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় অনুসারে, দেশের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে এবং এর রপ্তানি বাড়ানোর জন্য সরকার ২০২৫ সালের মধ্যে চা উৎপাদন ১৪০ মিলিয়ন কেজিতে উন্নীত করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। ২০২০ সালে রপ্তানির পরিমাণ ছিল ২.১৭ মিলিয়ন টন।

সারাদেশে চা সেক্টরে এক লাখ ১৫ হাজার স্থায়ী শ্রমিক রয়েছে। এছাড়া এই খাতের সঙ্গে সরাসরি নির্ভরশীল মানুষও সাড়ে তিন লাখের বেশি।

নগরায়ন এবং জনসংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ভোক্তাদের রুচির পরিবর্তনের কারণে চায়ের অভ্যন্তরীণ চাহিদা দ্রুত বাড়ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পর্যালোচনা অনুসারে, চা উৎপাদন এবং জাতীয় রপ্তানি আয়ে এর অবদান বাড়াতে বাজার বৈচিত্র্যকরণ প্রয়োজন।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
কলারোয়ায় ইঞ্জিন ভ্যানের চাকায় পিষ্ট হয়ে শিশুর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ইঞ্জিন ভ্যানের নিচে চাপা পড়ে চার বছরের শিশুর মৃত্যু হয়েছে। নিহত শিশু মোঃ আলিফ (৪) কলারোয়ার বোয়ালিয়া গ্রামের বাসিন্দা মুনসুর আলীর ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বেলা ১টার দিকে শিশুটি খেলা করার সময় বাড়ির বাইরে রাস্তায় চলে যায়। এসময় দ্রুতগতির একটি ইঞ্জিনভ্যান তাকে চাপা দিয়ে চলে যায়। আহত অবস্থায় শিশুটিকে কলারোয়া হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তবে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ওই শিশুর পরিবারের পক্ষ থেকে কোন মামলা দায়ের করা হয়নি।
কলারোয়া থানার ওসি মোঃ নাসিরুদ্দিন মৃধা জানিয়েছেন, ঘটনাটি তিনি শুনেছেন। ঘাতক ইঞ্জিন ভ্যানটিকে আটক করা সম্ভব হয়নি। নিহত শিশুর পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা রুজু হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
দেবহাটা ইঞ্জিন ভ্যান চুরির ২৪ ঘন্টায় ২ চোরসহ ভ্যান উদ্ধার

দেবহাটা প্রতিনিধি : দেবহাটা থানা পুলিশের অভিযানে ইঞ্জিন ভ্যান চুরির ২৪ ঘন্টার মধ্যে ২ চোরসহ চুরিকৃত ভ্যানটি উদ্ধার হয়েছে। আটককৃতদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

জানা গেছে, সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) সজীব খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস্) কনক কুমার দাস ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দেবহাটা সার্কেল) এস.এম জামিল আহমেদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ ওবায়দুল্লাহর নেতৃত্বে দেবহাটা থানা এলাকায় চোরাই মালামাল উদ্ধার অভিযান পরিচালনাকালে ইং ১৫/০৮/২০২২ তারিখ,

দিবাগত রাতে এসআই(নিঃ) শরিফুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ দেবহাটা থানার উত্তর পারুলিয়া গ্রামস্থ আবু তালেব শেখ এর চায়ের দোকানের সামনে রাস্তার পাশ থেকে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার রইচপুর দক্ষিনপাড়া মৃত লোকমান সরদার ছেলে ১। মনিরুল ইসলাম ভ্যাদল (৪৭) একই রইচপুর মধ্যপাড়া রুহুল কুদ্দুসের ছেলে ২। মাসুদ হোসেন (১৯) সর্ব থানা- সাতক্ষীরা সদর, জেলা-সাতক্ষীরাদ্বয়কে গ্র্রেফতার করে তাদের দখল থেকে চোরাই ইঞ্জিন চালিত ভ্যানগাড়ী উদ্ধার করে। আসামীদ্বয়কে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
সাতক্ষীরায় ইউপি চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সম্পত্তি দখল চেষ্টা!

নিজস্ব প্রতিনিধি : সাতক্ষীরায় স্থানীয় কুচক্রী মহল কর্তৃক পরিকল্পিতভাবে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের যুবকের পৈত্রিক সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আব্দুল মোতালেব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন, হাড়দ্দহা গ্রামের মৃত. শৈলন্দ্রে নাথ ঘোষের পুত্র রবীণ ঘোষ। লিখিত অভিযোগে তিনি বলেন, ভারতে লেখাপড়া করার সুবাধে দীর্ঘদিন ভারতে অবস্থান করেছিলাম।

যে কারনে অন্য ভাইয়ের তাদের সম্পত্তির বুঝে নিলেও ফাকা পড়ে ছিলো আমার ভাগের সম্পত্তি। আমার মায়ের নামে ৭০ থেকে ৮০ লক্ষ টাকার সম্পত্তি রয়েছে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ই¯্রাফিল গাজীসহ একটি কুচক্রী মহল আমার সম্পত্তি অবৈধভাবে দখলের স্বপ্ন দেখতে শুরু করে।
কিন্তু আমি গত ৮ বছর পূর্বে ভারত থেকে দেশে ফিরে এসে শান্তিপূর্ণভাবে আমার পৈত্রিক সম্পত্তিতে বসবাস শুরু করলে কুচক্রী মহল আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে এবং কৌশলে আমাকে ভারতে তাড়িয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্র করতে থাকে।

কৌশলে আমাকে ভারতে তাড়াতে পারলে আমারসহ মায়ের সম্পত্তি পুরোটাই ওই পর সম্পদ লোভী চেয়ারম্যান ই¯্রাফিলসহ অন্যারা অবৈধভাবে ভোগদখল করতে পারবে। আর এ উদ্দেশ্যেই আমার বয়োজ্যোষ্ট মাতাকে ভুল বুঝিয়ে আমার বিরুদ্ধে ক্ষেপিয়ে তোলে। তাদের কথামত আমার মা সাতক্ষীরা সদর থানা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং পরবর্তীতে এডিসি বরাবর অভিযোগ দায়ের করে। কিন্তু সব খানেই মায়ের অভিযোগ মিথ্যা প্রমানিত হয়। তবে এডিসি সাহেবের সামনে সিদ্ধান্ত হয় আমার সম্পত্তি ভাগ করে বুঝিয়ে দেবে।
এতে মায়ের মত থাকলেও চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে কুচক্রী মহল সেটি মানতে রাজি হয়নি। ইতোমধ্যে ৩ বছর অতিবাহিত হলেও সে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হয়নি। সে সময় আমি এডিসি অফিসে গিয়ে কপি চাইলে তারা বলে কপি লাগবে না, সমস্যা হলে আপনি আসবেন, আমরা দেখবো। এরপর বিভিন্ন সময়ে চেয়ারম্যান ই¯্রাফিল কয়েকবার আমাকে ডাকলেও আমি যায়নি। এতে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এর আগেও চেয়ারম্যান ই¯্রাফিলের নেতৃত্বে আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে ৪শ পিচ বাঁশ কেটে নিয়ে ৭ শতক জমি দখল করে নেয়। এনিয়ে আদালতে আমি একটি মামলা দায়ের করি। কোন ভাবে ওই লোভীরা তাদের অসৎ উদ্দেশ্যে হাসিল করতে না পেরে গত ১৪.০৮.২০২২ তারিখে ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদার, দফাদারসহ প্রায় ১৫/১৬ জন ব্যক্তিকে আমার বাড়িতে পাঠিয়ে আমাকে ধরে নিয়ে যেতে বলে। তারা হাতে লাঠিসোঠা নিয়ে আমার বাড়িতে প্রবেশ করে আমাকে বাড়ি থেকে বের হতে বলে এবং হুমকি ধামকি প্রদর্শন করে। আমি বের না হওয়ায় তারা ঘরের দরজায় ধাক্কা দিতে থাকে। আমি জীবন বাঁচাতে বাড়ি ছাদে উঠে ফাঁকা জায়গায় ইটপাটকেল ছুড়তে থাকলে তারা চলে যায়। ১৫ আজস্ট ২২ তারিখে বাড়ি থেকে সাতক্ষীরার উদ্দেশ্যে রওনা হলে পথিমধ্যে মেম্বর আশাফুলের নেতৃত্বে জামায়াতের বাহাদুর, মিন্টু, সামছুর ও পরিষদের ৩ জন চৌকিদারসহ কতিপয় ব্যক্তি আমার উপর হামলার চেষ্টা করে। আমি তাদের উপস্থিতি বুঝতে পেরে ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে তাদের সহযোগিতায় জীবনে রক্ষা পেয়েছি। আমি বর্তমানে ইউপি চেয়রাম্যানের সন্ত্রাসী বাহিনীর হুমকিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছি। জীবনের চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। তিনি ওই পর সম্পদলোভী চেয়ারম্যানসহ কুচক্রী মহলের হাত থেকে পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষা করতে এবং জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest