সর্বশেষ সংবাদ-
থানার ভিতরে চোখবাঁধা যুবলীগ নেতার ভিডিও ভাইরালসাতক্ষীরার বড় বাজার সংলগ্ন কেষ্টময়রার মোড়ে নেট টেলিকমে দূর্ধর্ষ চুরিসাতক্ষীরায় আবারও পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযান, ডোপ টেস্টে ১৫ জন পজিটিভআশাশুনিতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণা ॥ থানায় লিখিত অভিযোগআশাশুনিতে অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভাসদর আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতিকে ফুলেল শুভেচ্ছাজমে উঠেছে দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচন : ১৩টি পদে ১৭ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র সংগ্রহতালায় দলিত জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন শীর্ষক মতবিনিময় সভাকাশিমাড়ীতে আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৯৭ ব্যক্তিদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণসাতক্ষীরায় বাল্যবিবাহ বন্ধ করা হল ৯ম শ্রেণির ছাত্রীর

থানার ভিতরে চোখবাঁধা যুবলীগ নেতার ভিডিও ভাইরাল

অনলাইন ডেস্ক : ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিও নিয়ে হইচই পড়ে গেছে ফরিদপুরে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, জিনসের প্যান্ট ও কোট পরা এক ব্যক্তির হাতে হাতকড়া। দুই চোখ গামছা দিয়ে বাঁধা। তার সামনের চেয়ারে এক ব্যক্তি। তিনি বলছেন, ‘তোর কী হইছে। কে মারছে। আমি তো তোগের লোক না। তোগের লোক হলে থানায় থাকতে পারতাম। আমি এমপি নিক্সন চৌধুরীর লোক।’

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া এই ভিডিওতে নিজের পরিচয় দেয়া ব্যক্তি হলেন পরিদর্শক আহাদুজ্জামান। তিনি সদরপুর উপজেলার চন্দ্রপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা। ওই পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্ব পাওয়ার আগে জেলা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ছিলেন তিনি। আর ভিডিওতে হাতকড়া পরা ব্যক্তি হলেন ভাঙ্গা উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ আরাফাত।

গত সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) ভাঙ্গা উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ আরাফাত তার নিজের ফেসবুক আইডিতে ভিডিওটি আপলোড করেন। এরপরই সেটি ভাইরাল হয়। এ ঘটনা তদন্তে মঙ্গলবার (২৩ সেপ্টেম্বর) তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছেন পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান।

যুবলীগ নেতা শেখ আরাফাত বলেন, গত ৫ জানুয়ারি সন্ধ্যায় কাউলিবেড়া এলাকা থেকে যুবলীগ নেতা শেখ আরাফাতকে পুলিশ গ্রেফতার করে। হাতকড়া পরিয়ে গাড়ির মধ্যে চার পুলিশ সদস্য তাকে মারধর করেন। পুখুরিয়া এলাকায় তাকে ডিবি পুলিশের গাড়িতে তুলে দেয়া হয়। তখন তার চোখ বেঁধে ফেলা হয়। নানাভাবে ভয় দেখানো হয়। বলা হয়, ‘তোকে ক্রসফায়ারে দেব। সকালের সূর্য তুই দেখতে পারবি না। আজই তোর শেষ রাত।’

আরাফাত আরও বলেন, রাতে তাকে এসপির কার্যালয়ের তিন তলায় ডিবির কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে চেয়ারে পিটমোড়া করে বাঁধা হয়। এরপর তার দুই পায়ে বেতের লাঠি দিয়ে অন্তত ৩০ মিনিট পেটানো হয়। এরপর ১০ মিনিট বিরতি দিয়ে আবার পেটানো হয়।

১ মিনিট ১৬ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে দেখা যায়, আহাদুজ্জামান বলছেন, ‘আমি তো তোগের লোক না। তোগের লোক হলে (ভাঙ্গায়) থানায় থাকতে পারতাম।’

আহাদুজ্জামান ২০১৯ সালের ১৭ নভেম্বর থেকে ২০২০ সালের ১২ মার্চ পর্যন্ত ডিবির ওসি হিসেবে কর্মরত ছিলেন। পরে তাকে সদরপুরের চন্দ্রপাড়া ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে বদলি করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই আছেন।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওর বিষয়ে পুলিশের ওই কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি আরাফাতকে চোখবাঁধা অবস্থায় পেয়েছি। তাকে মারধর করা হয়েছে কি না জানি না। এর আগে আরাফাত আমাকে বলেছিলেন, আমি নাকি নিক্সন চৌধুরীর লোক। এর উত্তরে আমি বলেছি, নিক্সন চৌধুরীর লোক হলে আমি থানাতেই থাকতে পারতাম।’

প্রসঙ্গত, ভাঙ্গা, সদরপুর ও চরভদ্রাসন উপজেলা নিয়ে গঠিত ফরিদপুর-৪ আসনের বর্তমান সাংসদ মুজিবর রহমান চৌধুরী নিক্সন। গত ২০১৪ ও ২০১৮ সালে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহকে পরাজিত করেন।

দীর্ঘদিন ধরেই ভাঙ্গা থানা পুলিশ কাজী জাফরউল্লাহর সমর্থকদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার, মারধর ও মামলা দেয় বলে অভিযোগ করে আসছেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছে লিখিত অভিযোগসহ সংবাদ সম্মেলনও করেছেন তারা।

ভিডিওটির বিষয়ে ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, ওই ঘটনা তদন্তে মঙ্গলবার রাতে কমিটি গঠন করা হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) জামাল পাশাকে এ কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে। অন্য দুই সদস্য হলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রাশেদুল ইসলাম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ভাঙ্গা সার্কেল) গাজী রবিউল ইসলাম।

এ বিষয়ে এমপি মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন বলেন, আরাফাত অনেক মামলার আসামি। বিষয়টি পরিকল্পনা করে হয়ত সাজিয়েছে। ওই ঘটনার আমি কিছু জানি না।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
সাতক্ষীরার বড় বাজার সংলগ্ন কেষ্টময়রার মোড়ে নেট টেলিকমে দূর্ধর্ষ চুরি

আজিজুল ইসলাম:- সাতক্ষীরা বড় বাজার সংলগ্ন কেষ্টময়রার মোড়ে নেট টেলিকমে দূর্ধর্ষ চুরির ঘটনা ঘটেছে। জানা গেছে, নেট টেলিকমের স্বত্ত্বাধিকারী সদর উপজেলার ধুলিহর নাথপাড়া গ্রামের গৌতম সেনের পুত্র চন্দন সেন প্রতি দিনের ন্যায় (২৩ সেপ্টেম্বর) বুধবার তার কাজকর্ম শেষ করে দোকান বন্ধ করে বাড়ি যায়। পরের দিন সকালে সে দোকানে এসে দেখে তার দোকানের শার্টার ভাঙ্গা। ভিতরে ঢুকে দেখে তার দোকান থেকে মোবাইল বিক্রির ক্যাশে থাকা নগদ ১২ হাজার টাকা ও বিকাশে লোড দেওয়া ক্যাশ বাক্স থেকে ৮ হাজার টাকা, ওপ্পো এ ৩১ মডেলের ১ টি যার মূল্য ১৬ হাজার ৯ শত ৯০ টাকা, সিম্ফোনি আই ৬৬ মডেলের ১টি যার মূল্য ৬ হাজার ৯ শত ৯০ টাকার মোবাইল চোর চুরি করে নিয়ে যায়। এ ব্যপারে দোকান মালিক চন্দন সেন জানান, বুধবার দিবাগত রাত্র ৫ টা ১৯ মিনিট থেকে ৫ টা ৩২ মিনিটের মধ্যে দোকানের শার্টারের তলা ভেঙ্গে ঢুকে এই চুরি হয়েছে তিনি তার দোকানের ভিডিও ফুটেজ দেখে জানতে পারেন। এ ঘটনায় সাতক্ষীরা সদর থানায় লিখিত অভিযোগের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
সাতক্ষীরায় আবারও পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযান, ডোপ টেস্টে ১৫ জন পজিটিভ

ডেস্ক রিপোর্ট: কিছুদিন আগে ভোমরা সড়কে অভিনব মাদবিরোধী অভিযানের পর বুধবার আবারও একই ধরনের অভিযান চালিয়েছে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ। কলারোয়া থানার সীমান্তবর্তী এলাকায় পুলিশের এই মাদকবিরোধী অভিযানে আটক সন্দেহভাজনদের মধ্যে ডোপ টেস্টে ১৫ জন পজিটিভ হয়েছেন।
কলারোয়া থানা পুলিশ, জেলা গোয়েন্দা শাখা এবং পুলিশ লাইন্স এর সদস্যেদের সমন্বয়ে মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সাতক্ষীরা সদর সার্কেল) মির্জা সালাহউদ্দিনের নেতৃত্বে পরিচালিত এ অভিযানে অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন কলারোয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হারান চন্দ্র পাল, পুলিশ পরিদর্শক (ডিবি) মোঃ আজিজুর রহমান, এসআই (নিঃ) মনিরুল ইসলাম, এসআই (নিঃ) তন্ময়, এসআই (নিঃ) সোহরাব হোসেন, এসআই (নিঃ) রেজাউল করিমসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা। সিভিল সার্জন কার্যালয়, সাতক্ষীরার মেডিকেল অফিসার ডা. জয়ন্ত সরকারও এসময় উপস্থিত ছিলেন।
সাতক্ষীরা জেলার বিভিন্ন থানা, পার্শ্ববর্তী জেলা যশোর ও খুলনার মাদকসেবীরা কলারোয়া থানার সীমান্তবর্তী এলাকা কেড়াগাছী, সোনাবাড়িয়া, চন্দনপুর সহ জালালাবাদ ও ঝিকড়া এলাকায় এসে মাদক সেবন করছে, এমন সংবাদের ভিত্তিতে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। বাহ্যিক লক্ষণ বিবেচনায় এবং উপস্থিত ডাক্তারের পরামর্শে মোট ২৬ জনকে মাদকসেবী সন্দেহে ডোপ টেস্টের জন্য সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।
ডোপ টেস্ট শেষে ১৫ জনের ক্ষেত্রে রিপোর্ট পজিটিভ এবং ১১ জনের ক্ষেত্রে রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। মাদকাসক্ত প্রমাণিত ১৫ জন এর নিকট যে সমস্ত মাদক ব্যবসায়ী মাদক বিক্রি করেছিল, তাদেরকে শনাক্তের কাজ চলছে। মাদকসেবী প্রমাণিত ১৫ জনের বিরুদ্ধে কলারোয়া থানায় ‘মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮’ এ মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
আশাশুনিতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণা ॥ থানায় লিখিত অভিযোগ

আশাশুনি প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার দরগাহপুর ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের হাফিজুলসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার অভিযোগ এনে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। পাইকগাছার দেবদুয়ার গ্রামের মহসিন মিস্ত্রীর কন্যা শিরিনা খাতুন কতৃক থানায় দায়েরকৃত লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে জানাগেছে, উপজেলার রামনগর গ্রামের আলীম উদ্দীন গাজীর ছেলে হাফিজুল ইসলামের সাথে একই গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে লাচ্চুর মাধ্যমে পরিচিত শিরিনা হন। এরপর থেকে মোবাইলে তাদের মধ্যে যোগাযোগের এক পর্যায়ে বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে কাছে পেতে প্রতারণার আশ্রয় নেয় হাফিজুল। গত ১৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় হাফিজুল তাকে দরগাহপুর বাসস্ট্যন্ডে ডেকে নিয়ে সেখান থেকে যশোরে রওয়ানা হয় এবং খাজুরায় তার পরিচিত জনৈক হক এর বাড়িতে নিয়ে ওঠে। সেখানে তারা স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। তিন দিন সেখানে থাকার পর হাফিজুলের ভাই নূর ইসলাম ও লাচ্চু মোবাইলে কথা বলে বাড়ি ফিরতে বলে। তিনদিন পর তারা বাড়ির উদ্দেশ্যে বের হয়ে দরগাহপুরে আসলে ভাই ও লাচ্চুর কুপরামর্শে তাকে নিজের বাড়িতে না নিয়ে লাচ্চুর বাড়িতে নিয়ে তোলে। এরপর তারা ষড়যন্ত্র করে খুব শীঘ্রই বিয়ের ব্যবস্থা করা হবে বলে ওয়াদা করে শিরিনাকে তার পিতার বাড়িতে পাঠায়। কিন্তু পরে আর তার ফোন না ধরাসহ যোগাযোগ না রাখায় অনেক চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় শিরিনা। বাধ্য হয়ে শিরিনা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এব্যাপারে বিবাদী হাফিজুলসহ তার সহায়তাকারীদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
আশাশুনিতে অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা

আশাশুনি প্রতিনিধি:  আশাশুনিতে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন-২০২০ উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হলরুমে আগামী ০৪ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উদযাপন উপলক্ষে এ অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার এর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা। সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক (দায়িত্বপ্রাপ্ত) এসএম মোক্তারুজ্জামান স্বপনের সঞ্চালনায় এসময় আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ দীপন বিশ্বাস, স্যানিটারী ইন্সপেক্টর জিএম গোলাম মোস্তফা, উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার এনামুল হক, এমটি ইপিআই দিলীপ কুমার ঘোষ, স্বাস্থ্য পরিদর্শক ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক রমেশ চন্দ্র মন্ডল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
সদর আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতিকে ফুলেল শুভেচ্ছা

সাতক্ষীরা সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর রশিদকে ধুলিহর-বড়দল এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা প্রদান করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় এ শুভেচ্ছা জানান এলাকাবাসী। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুল হোসেন মাসুম, আবুল হোসেন, কাদের, বাহারুল, মাসুদ, আশরাফুল, আলমগীর, লিটন প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
জমে উঠেছে দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচন : ১৩টি পদে ১৭ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ

দেবহাটা ব্যুরো : জমে উঠেছে দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচন। দীর্ঘদিন পর নির্বাচনকে ঘিরে দেবহাটার সকল সাংবাদিকদের মধ্যে উৎসবের আমেজ বইছে। নির্বাচনের নানা আনুষ্ঠানিকতা, দাপ্তরিক কার্যক্রম, মনোনয়নপত্র সংগ্রহ আর সাংবাদিকদের পদচারণায় বর্তমানে মুখরিত হয়ে উঠেছে দেবহাটা প্রেসক্লাব। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় গঠনতন্ত্র মোতাবেক দেবহাটা প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন ২০২০-২১ এর তফশিল ঘোষনার পর বুধবার মনোনয়নপত্র সংগ্রহের শেষ সময় পর্যন্ত ১৩ টি পদের বিপরীতে মোট ১৭জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ণপত্র সংগ্রহ করেছেন।
আগ্রহী প্রার্থীরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই স্বতষ্ফূর্তভাবে দেবহাটা প্রেসক্লাব ভবনে উপস্থিত হয়ে উৎসব মুখর পরিবেশে আহ্বায়ক কমিটি নিযুক্ত রিটার্নিং অফিসার সরকারী খানবাহাদুর আহছানউল্লাহ কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আনিসুর রহমানের উপস্থিতিতে নির্ধারিত ফি দিয়ে কাঙ্খিত পদের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন।
এনিয়ে কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনে ১৩টি পদের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দীতায় অংশগ্রহনেচ্ছু ১৭জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে প্রতিদ্বন্দীতা করতে যাচ্ছেন।
উল্লেখ্য, আহ্বায়ক কমিটি ঘোষিত নির্বাচনী তফশিল মোতাবেক ২৪ সেপ্টেম্বর দুপুর ১টা পর্যন্ত প্রেসক্লাবের কার্যালয় থেকে রিটার্নিং অফিসারের উপস্থিতিতে প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীরা তাদের মনোনয়ন পত্র দাখিল করতে পারবেন। ২৫ সেপ্টেম্বর প্রার্থীদের দাখিলকৃত মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের সুযোগ রয়েছে। ওই দিনই আহ্বায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে দাখিলকৃত মনোনয়ন পত্র যাচাই বাছাই এবং ২৬ সেপ্টেম্বর প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীদের প্রতিক বরাদ্দ করবে নির্বাচন কমিশন।
সর্বশেষ ১লা অক্টোবর উৎসব মুখর পরিবেশে প্রেসক্লাব ভবনে কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যেই নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠভাবে নির্বাচন সম্পন্নের জন্য সার্বক্ষনিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার দেবহাটা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট ক্রীড়া ব্যাক্তিত্ব মো. আবু বকর গাজী।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
তালায় দলিত জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন শীর্ষক মতবিনিময় সভা

তালা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরার তালায় দলিত জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলা পরিষদ হলরুমে উদ্দীপ্ত মহিলা উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার। উদ্দীপ্ত মহিলা উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি সুমা সরকারের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুর্শিদা পারভীন পাঁপড়ি, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আব্দুল আওয়াল,উদ্দীপ্ত মহিলা উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক জয়ন্তী রানী,মুক্তি ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক গোবিন্দ ঘোষ, উদ্দীপ্ত মহিলা উন্নয়ন সংস্থার উপদেষ্টা দীলিপ কুমার দাস প্রমূখ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন উদ্দীপ্ত মহিলা উন্নয়ন সংস্থার জুয়েল সরকার। এসময় ২০২১ সালের আদমশুমারীতে দলিত জনগোষ্ঠীকে আলাদা ভাবে অন্তভৃক্ত করার আহবান জানান বক্তারা।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest