সর্বশেষ সংবাদ-
সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থা ও আটকের প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় মানববন্ধনআবারও নারী কেলেংকারীর অভিযোগ! বাগেরহাটের ডিসি বদলিআদালতে সাংবাদিক রোজিনা, ৫ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশভারতে করোনায় একদিনে ৪৩২৯ জনের মৃত্যুর নতুন রেকর্ডসাংবাদিক রোজিনাকে নির্যাতন : স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্রিফিং বয়কটের ডাকপুলিশের ৪ ডিআইজি অতিরিক্ত আইজিপি হলেনকলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার পরিকল্পনাসাতক্ষীরায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা ভারত ফেরতদের খাবার দিল জেলা পরিষদবাস-ট্রেন-লঞ্চ আরো কিছুদিন বন্ধ থাকুক : স্বাস্থ্যমন্ত্রীদেশের মানুষের মাসে মাথাপিছু আয় বেড়ে সাড়ে ১৫ হাজার টাকা

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থা ও আটকের প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিনিধি : সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থা, নির্যাতন চালানোর ঘটনায় তথ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ প্রয়োজন ছিল সাবার আগে। আমরা এখনো সেটি লক্ষ্য করছি না। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় দুর্নীতির আখড়া যা সর্বজন স্বীকৃত। দুর্নীতির সংবাদ করায় মন্ত্রণালয়ের কক্ষে পাঁচ ঘন্টা আটকে রেখে সাংবাদিককে নির্যাতন করা হয়েছে। সাংবাদিকের উপর খড়গ আঘাত না এনে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানিয়েছে সাংবাদিকবৃন্দ।

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে মঙ্গলবার (১৮ মে) বেলা ১২টায় মানববন্ধনে এসব কথা বলেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের কর্তব্যরত সাংবাদিকরা।

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থা ও আটকসহ দেশব্যাপী সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি মমতাজ আহমেদ বাপী।

সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ আলী সুজনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক, সাতক্ষীরা কল্যাণ ব্যানার্জি, সাবেক সভাপতি অধ্যাপক আনিসুর রহিম, সাবেক সভাপতি জিএম মনিরুল ইসলাম মিনি, স্বদেশ, সাতক্ষীরার নির্বাহী পরিচালক মাধব চন্দ্র দত্ত, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি মো: হাবিবুর রহমান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম কামরুজ্জামান, আরটিভির সাতক্ষীরা প্রতিনিধি রামকৃষ্ণ চক্রবর্তী, প্রেসক্লাবের যৃগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মো: আব্দুল জলিল, সাংগঠনিক সম্পাদক এম ঈদুজ্জামান ইদ্রিস, নির্বাহী সদস্য সেলিম রেজা মুকুল, ডেইলি সাতক্ষীরার সম্পাদক হাফিজুর রহমান মাসুম, ভোরের কাগজের স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা ড. দিলীপ কুমার দেব, দৈনিক মানব কণ্ঠের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ও আশাশুনি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, বিজয় টিভির সাতক্ষীরা প্রতিনিধি আকরামুল ইসলাম।

প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে সাংবাদিকরা বলেন, প্রতিথযশা নির্ভীক সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে যেভাবে নির্যাতন করা হয়েছে সেটি নির্মম ও বর্বর। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব জেবুন্নেচ্ছা খানম সাংবাদিকের গলার টুটি চেপে ধরে হত্যাচেষ্টা করে সরকারকেই বেকায়দায় ফেলানোর অপচেষ্টা চালিয়েছেন। অতিরিক্ত সচিব জেবুন্নেচ্ছা খানমের নামে স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তির পাহাড় গড়ে তুলেছেন। যা দুর্নীতির একটি বড় প্রমাণ করে। অথচ তার বিরুদ্ধে কোন আইনগত ব্যবস্থা বা শাস্তি না হয়ে দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ করায় উল্টো সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে। আমরা সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নিঃশর্ত মুক্তি ও ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। এসময় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সদস্য ও অন্যান্য সাংবাদিকবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
আবারও নারী কেলেংকারীর অভিযোগ! বাগেরহাটের ডিসি বদলি

অনলাইন ডেস্ক : নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ পিছু ছাড়ছে না মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের। জামালপুরের ডিসির আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশের পর তাকে লঘুদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছিল। ওই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই মাঠ প্রশাসনের কয়েকজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ ওঠে। এবার এক নারী ব্যাংক কর্মকর্তার সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ উঠেছে বাগেরহাটের ডিসি আ. ন. ম. ফয়জুল হকের বিরুদ্ধে।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বরাবর লিখিতভাবে এ অভিযোগ করেছেন ওই নারীর স্বামী। এ অভিযোগ ওঠার এক মাসের মাথায় আ. ন. ম. ফয়জুল হককে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগে বদলি করা হয়েছে। আর সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপ-সচিব মুহাম্মদ আজিজুর রহমানকে বাগেরহাটের নতুন ডিসি হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।
গত রোববার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত ১১ই এপ্রিল প্রাইভেট কোম্পানিতে কর্মরত এক ব্যক্তি তার সংসার ভেঙে যাচ্ছে মর্মে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বরাবর প্রতিকার প্রার্থনা করেন।
ওই ব্যক্তি তার লিখিত অভিযোগে বর্ণনা করেন, ২০২০ সালের ৫ই আগস্ট তৎকালীন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ফয়জুল হকের সঙ্গে তার স্ত্রীর ফেসবুকে পরিচয় হয়। এরপর থেকে ফয়জুল হক অফিস চলাকালীন ওই নারী ব্যাংক কর্মকর্তাকে কবিতা গান শুনিয়ে ক্রমাগত উত্ত্যক্ত করতেন। ফেসবুকসহ অন্যান্য যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের চ্যাটিং চলতো। এ সময় ফয়জুল হক তাকে বিভিন্ন আপত্তিকর কথা বলেন এবং কুপ্রস্তাব দেন। তাদের সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হওয়ার এই পর্যায়ে ফয়জুল হক নটরডেম কলেজের পাশে রিও কফি শপে নানা অজুহাতে ওই নারীকে কফি খাওয়ার জন্য ঘন ঘন নিমন্ত্রণ করেন। সে বছর আগস্ট, সেপ্টেম্বর ও অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত অফিস চলাকালে কফি পানের নামে তারা ঘনিষ্ঠভাবে আড্ডা দিতে থাকেন। পরবর্তীতে নিজের স্বামীকে ঘটনাগুলো অবহিত করেন ওই নারী।

১৩ই অক্টোবর বিকালে ফয়জুল হক ওই নারীকে পুনরায় কফিশপে ডাকেন। ওই নারী সেখানে পৌঁছলে ফয়জুল হক তাকে অসুস্থতার কথা বলে কমলাপুর রেল স্টেশনের পাশে রেলওয়ে রেস্ট হাউজে নিয়ে যান। পথিমধ্যে ওই নারীকে বলেন ‘আমি ওখানে শুয়ে রেস্ট নিবো আর তুমি বসে আমার সঙ্গে গল্প করবে’। ওখানে পৌঁছানোর আগেই ওই রেস্ট হাউজের কর্মচারীকে দিয়ে জন্মনিয়ন্ত্রণ সামগ্রী কিনে আনেন ফয়জুল হক। রেস্ট হাউজের দোতলার একটি রুমে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গে ফয়জুল হক ওই নারীর ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।
ওই নারী শারীরিক সমস্যার কথা বলেও যৌন নির্যাতনের হাত থেকে রেহাই পাননি। বিধ্বস্ত অবস্থায় অফিস হয়ে বাসায় ফেরেন তিনি। ফয়জুল হক পরবর্তীতে বিভিন্নভাবে ওই নারীর কাছে ক্ষমা চান। এরপর নিজের জন্মদিনের কথা বলে ১৮ই অক্টোবর পুনরায় ওই রেস্টহাউজে তাকে ডেকে নেন। রেস্টহাউজের পৌঁছা মাত্রই ফয়জুল হক রুমের দরজা বন্ধ করে দেন। ওই ব্যাংক কর্মকর্তা অনেক কান্নাকাটি ও প্রতিরোধ করা সত্ত্বেও তার ওপর যৌন নির্যাতন চালানো হয়। বিষয়টি নৈতিকভাবে তাকে আহত করায় স্বামীকে জানানোর হুমকি দেন তিনি। এ সময় ফয়জুল হক কাকুতি মিনতি করে বিষয়টি গোপন রাখার এবং বন্ধুত্ব চালিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করে। ২৩শে অক্টোবর ভুক্তভোগী নারী বিষয়টি তার স্বামীকে অবহিত করেন। অভিযোগে আরো বলা হয়, অপকর্ম ফাঁস হওয়ার ভয়ে ফয়জুল হক কৌশল পরিবর্তন করেন। তিনি ওই নারীকে তার স্বামীর কাছ থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য নানাভাবে প্রলুব্ধ করে যাচ্ছেন। ব্যাংক কর্মকর্তা ওই নারী খুলনায় বদলি হওয়ার পর ফয়জুল হকও বাগেরহাটে জেলা প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ পান। ইতিমধ্যে ওই নারী তার স্বামীর প্রতি বিদ্বেষপরায়ণ ও শত্রুভাবাপন্ন হয়ে পড়েন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। প্রশাসনের প্রভাব খাটিয়ে তার স্বামীকে নানাভাবে হুমকি দিতে থাকেন জেলা প্রশাসক ফয়জুল হক।
অভিযোগকারীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তার স্ত্রী ও ফয়জুল হকের যোগাযোগের বাস্তব ও অকাট্য প্রমাণ তিনি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে দাখিল করেছেন। তার সংসারে ৯ বছর ও ৩ বছরের দুটি সন্তান আছে। স্ত্রীর এমন কর্মকাণ্ডে সন্তান নিয়ে মহাসংকটে পড়েছেন তিনি। পাশাপাশি নিজের ও সন্তানদের নিরাপত্তা নিয়েও শঙ্কিত বলে জানান তিনি।
আ. ন. ম. ফয়জুল হকের বক্তব্য জানতে চাইলে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই নারীকে তার স্বামী ডিভোর্স দিয়েছিল। তাদের পারিবারিক সমস্যায় মধ্যস্থতা করতে গিয়েছিলেন তিনি। পরবর্তীতে তাকে ফাঁসানো হয়েছে। ডিভোর্স দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করে ওই নারীর স্বামী বলেন, তিনি আদালতের মাধ্যমে ডিভোর্স স্থগিতের আবেদন করেছেন। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ডিভোর্সের কার্যক্রম স্থগিত করেছেন। এ বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন মানবজমিনকে বলেন, আ. ন. ম. ফয়জুল হকের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ এসেছে। অভিযোগটির বিষয়ে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
আদালতে সাংবাদিক রোজিনা, ৫ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ

দেশের খবর : প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় আদালতে নেওয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে দায়ের করা মামলার শুনানি হবে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. জসিমের আদালতে।

সিএমএম আদালতের রমনা থানার নিবন্ধন কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন ফকির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তাকে আদালতের হাজতে রাখা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

নিজাম উদ্দিন ফকির আরও জানিয়েছেন, শাহবাগ থানার পুলিশ পরিদর্শক আরিফুর রহমান সরদার সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছেন।

এ প্রতিবেদন লেখার সময় শুনানিচলছিল বলে জানা গেছে।

প্রথম আলোর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য গতকাল সোমবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে গেলে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে সেখানে পাঁচ ঘণ্টার বেশি সময় আটকে রেখে হেনস্তা করা হয়। একপর্যায়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

রাত সাড়ে আটটার দিকে পুলিশ তাকে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায়। রাত পৌনে ১২টার দিকে পুলিশ জানায়, রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা হয়েছে। তাকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

এই ঘটনার প্রতিবাদে সাংবাদিকেরা বিকেলে সচিবালয়ে এবং রাতে শাহবাগ থানার সামনে বিক্ষোভ করেন। এর নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্ট (সিপিজে), অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালসহ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংগঠন। এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিরা ঘটনার প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
ভারতে করোনায় একদিনে ৪৩২৯ জনের মৃত্যুর নতুন রেকর্ড

বিদেশের খবর : ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ লাখ ৬৩ হাজার ৫৩৩ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দ্বিতীয় দিনের মতো দেশটিতে দৈনিক ৩ লাখের নিচে করোনা রোগী শনাক্ত হলো। এ সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৩২৯ জনের। এটিই ভারতে ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড।

মঙ্গলবার (১৮ মে) টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সোমবার ২ লাখ ৮১ হাজার মানুষের শরীরে সংক্রমণ শনাক্তের কথা জানিয়েছিল দেশটির স্বাস্থ্য দফতর। শনাক্তের সংখ্যা কমলেও গত ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে মৃত্যুর সংখ্যা। ভারতে মোট করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৫২ লাখ ২৮ হাজার ৯৯৬। এই মহামারিতে দেশটিতে মোট মারা গেছেন ২ লাখ ৭৮ হাজার ৭১৯ জন।

গত মার্চের মাঝামাঝি সময়ে ভারতে দৈনিক শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা ছিল ২০ হাজারের কাছাকাছি। তারপর দেশটিতে ভয়াবহ হারে বাড়তে থাকে সংক্রমণ। গত ৩ এপ্রিল ভারতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দুই কোটি ছাড়িয়ে যায়।

গত ৩০ এপ্রিল ভারতে প্রথম এক দিনে চার লাখের বেশি মানুষের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে। তারপরেও একাধিক দিন দেশটিতে চার লাখের বেশি রোগী শনাক্ত হয়।

৭ মে ভারতে প্রথম এক দিনে চার হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যুর কথা জানা যায়।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
সাংবাদিক রোজিনাকে নির্যাতন : স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্রিফিং বয়কটের ডাক

দেশের খবর : প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থা ও অফিসিয়াল সিক্রেট অ্যাক্টের মামলায় গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ)। এরই অংশ হিসেবে আজ মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আয়োজিত সকাল ১১টার সংবাদ সম্মেলন বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংগঠনটি।

সচিবালয়ে কর্মরত গণমাধ্যমকর্মীদের সংগঠন বিএসআরএফ। সাংবাদিক রোজিনা ইসলামও এই সংগঠনের সদস্য। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ আজ সকালে এক বিবৃতিতে এই সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। তিনি এ ব্যাপারে সবার সহযোগিতা কামনা করে বলেন, ‘পরবর্তীতে কর্মসূচি কার্যনির্বাহী কমিটির আজকের জরুরি সভা থেকে ঘোষণা করা হবে।’

সরকারি নথিপত্র চুরির অভিযোগে গতকাল সোমবার রাতে শাহবাগ থানায় রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ। আজ সকালে তাঁকে আদালতে নেওয়া হয়েছে।

মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়েছে, সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগে যান রোজিনা ইসলাম। এ সময় তিনি মন্ত্রণালয়ের সচিবের একান্ত সচিবের কক্ষে গিয়ে গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র নেন এবং মোবাইল ফোনে ছবি তোলেন। পরে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা তাঁর শরীর তল্লাশি করে সেইসব নথিপত্র উদ্ধার করেন।

এই অভিযোগে রোজিনা ইসলামকে কয়েক ঘণ্টা সচিবালয়ে আটক রেখে সন্ধ্যার পর শাহবাগ থানায় হস্তান্তর করা হয়। খবর পেয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমের সংবাদকর্মী, তাঁর কর্মস্থলের সহকর্মী আত্মীয়-স্বজন, বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা জড়ো হয়ে রোজিনার মুক্তি দাবি করেন।

আটকের দীর্ঘ সময় পরে রোজিনার কয়েকজন স্বজন তাঁর সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পান। বেরিয়ে এসে রোজিনার বড় ভাই সেলিম জানান, তাঁর বোনকে শারীরিকভাবে হেনস্তা করা হয়েছে।

সোমবার রাত পৌনে ১২টার দিকে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) রমনা জোনের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) হারুন অর রশীদ থানায় উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘বাদীর লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মামলা হয়েছে। দণ্ডবিধির ৩৭৯ এবং ৪১১ ধারা, অফিসিয়াল সিক্রেসি অ্যাক্ট-১৯২৩-এর ৩ এবং ৫ ধারা অনুযায়ী রোজিনা ইসলামের নামে মামলা করেছেন উপসচিব শিব্বির আহমেদ ওসমানী। এ মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।’

মামলায় এজাহারে সরকারি গোপনীয় অফিসিয়াল ডকুমেন্ট চুরির মাধ্যমে সংগ্রহ ও উক্ত নথি চুরির ডকুমেন্ট দ্বারা বহির্বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় সম্পর্ক নষ্ট করার অপচেষ্টার অপরাধের কথা বলা হয়েছে। রোজিনা ইসলামের কাছে ওই ডকুমেন্টের ৬২ পাতা উদ্ধার করা হয়েছে বলেও বলা হয়েছে মামলায়।

গভীর রাতে রোজিনার সঙ্গে দেখা করার পর তাঁর বড় ভাই মো. সেলিম সাংবাদিকদের সামনে বলেন, ‘ও ঠিকমতো কথা বলতে পারতেছে না। ওর দুই হাতে এবং গলায় অনেকগুলো খামচির দাগ দেখেছি। খামচি দিলে যেরকম নখের আঁচড় পড়ে। নারী অ্যাডিশনাল সেক্রেটারি যিনি, উনি ওর বুকের মধ্যে চাপ দিয়ে ধরেছে। পুলিশের কনস্টেবল মিজান নাকি বলেছে, ওকে মাটির নিচে পুঁতে ফেলবে।’

শাহবাগ থানায় উপস্থিত প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক বলেন, ‘সরকারের মধ্যে নিশ্চয় সুবিবেচক আছেন। তাঁরা দেখবেন যে, এটা তাদের জন্যে ক্ষতিকর হচ্ছে। সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা সাংবাদিকতার জন্যে দরকার না, এটা দেশের জন্যে দরকার, গণতন্ত্রের জন্যে দরকার, মানুষের জন্যে দরকার। ছলে-বলে-কৌশলে নানান প্রকার হয়রানি করে হামলা করার যে চেষ্টা এটা সরকারের জন্যে অন্তর্ঘাত হচ্ছে। আমাদের জন্যে এটা মানার মতোন না। অবিলম্বে রোজিনার মুক্তি চাই।’

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
পুলিশের ৪ ডিআইজি অতিরিক্ত আইজিপি হলেন

অনলাইন ডেস্ক : পুলিশের ঊর্ধ্বতন চার কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দিয়ে অতিরিক্ত আইজিপি, গ্রেড-২ পদে পদায়ন করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

সোমবার রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের পুলিশ অধিশাখা-১ এর উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে পদোন্নতির এই আদেশ দেয়া হয়।

অতিরিক্ত আইজিপি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত চার পুলিশ কর্মকর্তা হলেন, এন্টি টেরোরিজম ইউনিটের ডিআইজি মো. দিদার আহম্মদ, নৌ পুলিশের ডিআইজি মো. আতিকুল ইসলাম, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ডিআইজি এম ‍খুরশীদ হোসেন ও বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম। সূত্র: ডিএমপি নিউজ।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা

অনলাইন ডেস্ক : কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা করছে সরকার। আজ সোমবার মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম পরিষদের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সুবিধাজনক পরিস্থিতিতে এবং বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ছেলেমেয়েদের টিকা দেওয়া গেলে তাড়াতাড়ি এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে। এ ছাড়া এ বন্ধের মধ্যে কলেজ–বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোর সংস্কার কাজ চলছে। ইতোমধ্যে ৪০টির সংস্কার শুরু হয়েছে।

এদিকে করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় এবং মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ২৯ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এ সময়ে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে এবং শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

এদিকে সরকার শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা করলেও করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে চিন্তিত স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

আজ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে জাহিদ মালেক বলেন, চুক্তি অনুযায়ী ভারতের আমাদের তিন কোটি করোনার টিকা দেওয়ার কথা। কিন্তু আমরা পেয়েছি ৭০ লাখ। ফলে আমরা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে চিন্তায় আছি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা এখন রাশিয়া, চীন, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের সঙ্গে টিকা আমদানির বিষয়ে যোগাযোগ করছি। দ্বিতীয় ডোজের জন্য ভারত ও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে কথা বলছি। প্রধানমন্ত্রী নিজেও চেষ্টা করেছেন। আগামী ২৫ মে থেকে চীনের টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া শুরু হবে। এ টিকাগুলো বাংলাদেশকে উপহার হিসেবে দিয়েছে চীন। এ ছাড়াও চীন থেকে বাংলাদেশ টিকা কিনবে, তা নিয়ে আলোচনা চলছে।

দেশে টিকা তৈরির উদ্যোগের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, যেকোনো ভ্যাকসিন তৈরি করতে হলে ঔষধ প্রশাসনের অনুমোদন লাগে। যেসব প্রতিষ্ঠান আবেদন করেছে তাদের আবেদন যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। উৎপাদনে গেলেও পাঁচ থেকে ছয় মাস লাগতে পারে। এ জন্য আমরা আপাতত জরুরি প্রয়োজনে টিকা কিনে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যাদের উৎপাদনের সক্ষমতা আছে তাদের এগিয়ে আসতে হবে। প্রথমে তাদের আবেদন দেখে আমাদের কাছে আসতে হবে। তারপর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। সেরকম কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

জাহিদ মালেক বলেন, সরকারের সময় মতো সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণের ফলেই করোনায় এখনো বাংলাদেশ অনেকটাই নিরাপদ রয়েছে। পাশের দেশ ভারতে দিনে গড়ে প্রায় চার হাজার মানুষ করোনায় মারা যাচ্ছে এবং দৈনিক তিন থেকে চার লাখ মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। অথচ ভারতের এত নিকটবর্তী দেশ হয়েও আমাদের দেশে বর্তমানে সংক্রমণ দিনে ৩০০ জনের কাছাকাছি নেমে গেছে। ভারতীয় নতুন ভ্যারিয়েন্ট দেশে চলে এলেও তাদের সঠিকভাবে কন্ট্রাক্ট ট্রেসিং করার ফলে ভ্যারিয়েন্টটি দেশে এখনো ছড়িয়ে পড়তে পারেনি। তবে, আগামী কিছুদিন আমাদের আরো বেশি সতর্ক থাকতে হবে। ঈদ শেষে মানুষ যেন আগামী কিছুদিন ঢাকায় ফিরতে না পারে সে ব্যাপারে সরকারকে সচেষ্ট থাকতে হবে। পাশের দেশ ভারতের কোভিড পরিস্থিতি স্বাভাবিক পর্যায়ে না আসা পর্যন্ত ভারতের সঙ্গে সব রকম সীমান্ত বন্ধ রাখতে হবে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
সাতক্ষীরায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা ভারত ফেরতদের খাবার দিল জেলা পরিষদ

এম বেলাল হোসাইন : সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে সাতক্ষীরায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা ভারত ফেরত ২৩৭ জন যাত্রীদের মধ্যে দুই বেলার খাবার প্রদান করা হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম নিজে উপস্থিত থেকে সোমবার সাতক্ষীরার বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে থাকা মোট ২৩৭ জনের মধ্যে সকালের এবং দুপুরের খাবার পৌছে দেওয়া হয়।

এসময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রনি, জেলা পরিষদ সদস্য আল ফেরদৌস আলফা, মনিরুল ইসলাম, প্রশাসনিক কর্মকর্তা খলিলুর রহমানসহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

গত ৫ মে ভারত থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে এসব যাত্রীরা দেশে আসেন। এরপর থেকে সাতক্ষীরার বিভিন্ন আবাসিক হোটেল তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। এসব যাত্রীরা আবাসিক হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে চরম খাদ্য সংকটে ভুগছিলেন।

0 মন্তব্য
1 FacebookTwitterGoogle +Pinterest