সাতক্ষীরার তাহমিনা ‘পলাতক স্বামী’ হরিচাঁদকে ভারতে গিয়ে ধরলেন

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশে একজনকে বিয়ে করে ভারতে গিয়ে আবার আরেকজনের সঙ্গে ঘর বেধেছিলেন সাতক্ষীরার হরিচাঁদ মণ্ডল নামের এক ব্যক্তি। পরে ভারতে গিয়ে ওই তরুণী তার স্বামীকে খুঁজে বের করেছেন। তাহমিনা ও হরিচাঁদের বাড়ি সাতক্ষীরার কোথায় তা এখনো জানা সম্ভব হয়নি।
জানা গেছে, সাতক্ষীরার মেয়ে তথা হরিচাঁদের ‘স্ত্রী’ ২৭ বছর বয়সী তাহমিনা খাতুন। তার দাবি হরিচাঁদের সঙ্গে তার যোগাযোগ অনেক দিনের।
দুজনেই বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার বাসিন্দা। ২০১৮ সালে তাদের বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের কিছুদিন পরেই হরিচাঁদ ভারতে চলে যান।
অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গের গাইঘাটার মোড়ল ডাঙা গ্রামে গিয়ে থাকা শুরু করলে তাহমিনাকে এড়িয়ে চলতে থাকেন হরিচাঁদ।
এক সময় হরিচাঁদ তাহমিনাকে বলেন পাঁচ দিনের মধ্যে বাংলাদেশ থেকে ভারতে চলে যেতে।
ভারতীয় গণমাধ্যমকে তাহমিনা বলেন, ‘আমি বাংলাদেশে একটি স্কুলে চাকরি করি। পাকাপাকিভাবে এখানে চলে আসা সম্ভব নয়। তাই আসতে পারিনি।’
বুধবার সেই ক্ষোভেই হরিচাঁদের মোড়ল ডাঙার বাড়িতে হানা দেন তাহমিনা। হরিচাঁদ যাতে পালাতে না পারেন, তা নিশ্চিত করতে বাড়ির দরজায় তালাও দিয়ে দেন। পুলিশ হরিচাঁদকে উদ্ধার করতে এলে তাহমিনার সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়।
তাহমিনার অভিযোগ, হরিচাঁদ দুই দেশের পরিচয়পত্রই ব্যবহার করে।

পুলিশ বলছে, অভিযোগের সত্যতা খতিয়ে দেখে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।সূত্র: ভারতীয় গণমাধ্যম

Related posts