ক্রিকেটার শাহাদাত ৫ বছর নিষিদ্ধ

খেলার খবর: ম্যাচ চলাকালে সতীর্থ আরাফাত সানি জুনিয়রকে মারধরের দায়ে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন পেসার শাহাদাত হোসেন রাজীব। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) তার অপরাধ বিচার-বিবেচনা করে এই শাস্তি দিলো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

জাতীয় লিগের ফাইনাল রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনের ঘটনা এটি। যার সূত্রপাত বল ঘষা নিয়ে। বোলার শহীদের হাতে বল দেয়ার আগে রাজীব আরাফাত সানিকে বলেন, বল ঘষে দিতে। কিন্তু, সানি তা করতে অস্বীকৃতি জানান। তখন কথা কাটাকাটি হয় দু’জনের।

এক পর্যায়ে আরাফাত সানির গায়ে হাত তোলেন শাহাদাত। ম্যাচ রেফারি আখতার আহমেদ তার রিপোর্টে এভাবেই ঘটনাক্রম উল্লেখ করেন। শাহাদাতের বিরুদ্ধে আচরণবিধির লেভেল ৪ ভাঙার অভিযোগ আনেন রেফারি। যা অত্যন্ত গুরুতর। শেষমেশ বড় শাস্তিই পেলেন তিনি।

শাহাদাতকে ঘিরে এমন বিতর্কিত ঘটনা নতুন নয়। গত বছর মিরপুর রোডে এক সিএনজি ড্রাইভারের সঙ্গে মারামারি করেও খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন শাহাদাত। এরপর তিনি সেই সিএনজি ড্রাইভারের সঙ্গে দেখা করে তার কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন। এর ফলে নিশ্চিত থানা-পুলিশ থেকে বেঁচে যান তিনি। কিন্তু এবার আর রক্ষা হলো না।

২০১৫ সালে গৃহকর্মীকে মারধরের অপরাধে কারাভোগের সাজা হলে তাকে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা দেয় বিসিবি। এরপর থেকে তিনি আর দলে ফেরার সুযোগ পাননি। বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে ৩৮টি টেস্ট, ৫১টি একদিনের আন্তর্জাতিক এবং ৬ টি২০ ম্যাচে অংশ নিয়েছেন শাহাদাত।

Related posts