ইরাকে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে গুলিতে নিহত ৪৫

বিদেশের খবর: ইরাকের বাগদাদসহ বিভিন্ন স্থানে সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষে ৪৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আড়াই শতাধিক।

বৃহস্পতিবার (২৯ নভেম্বর) দেশটির তিন শহরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলির মুখে পড়তে হয় বিক্ষোভকারীদের। এতে গুলিতে মারা যান ৪৫ জন।

নাসারিয়া শহরে আন্দোলনকারীরা দুটি ব্রিজ অবরোধ করে। এসময় নিরাপত্তা রক্ষী বাহিনী গুলি ও টিয়ার সেল ছুঁড়ে। এতে নিহত হয় ২৯ জন। নাজাফ শহরে মারা গেছে আরও ১২ জন। বুধবার রাতে এখানেই ইরানি দূতাবাসে আগুন দেয় বিক্ষোভকারীরা। বাগদাদে নিহত হয়েছেন আরও ৪ জন। এক পর্যায়ে বিক্ষোভকারীদের হঠাতে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়।

এর আগে গত বুধবার রাতে ইরাকের সরকার বিরোধী আন্দোলন ভয়াবহ আকার নেয়। ওই রাতে নাজাফের ইরানি কনসুলেটে হামলা চালান ইরাকের সরকার-বিরোধী আন্দোলনকারীরা। তারা কনসুলেটের মূল ফটক ভেঙে ভিতরে ঢুকে আগুন লাগিয়ে দেন। পরিস্থিতি সামলাতে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় ইরাকি বাহিনী। বিক্ষোভকারীদের নিরস্ত করতে কাঁদানে গ্যাস ছোড়া হয়। দু’পক্ষের সংঘর্ষে ৩৫ জন বিক্ষোভকারী আহত হন। ইরাকের নিরাপত্তা বাহিনীরও ৩২ জন আহত হন। এ ঘটনার পর থেকে কার্ফু জারি রয়েছে নাজাফে। কিন্তু বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে দক্ষিণ ইরাকের আর এক শহর নাসিরিয়ায়।

প্রসঙ্গত, কর্মসংস্থানের সংকট, দুর্নীতিসহ নানা অভিযোগে গেল মাস থেকে রাজধানী বাগদাদসহ বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ চলছে। ইরাকের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে ইরানসহ আঞ্চলিক বিভিন্ন দেশের প্রভাব নিয়ে ক্ষোভ জানায় সরকারবিরোধীরা। এখন পর্যন্ত এই বিক্ষোভে নিহত হয়েছেন প্রায় ৪০০ মানুষ।

Related posts