আশাশুনির বড়দলে প্রতিবন্ধির কন্যা অসহায় আছমা স্ত্রীর অধিকার চায়


আশাশুনি ব্যুরো : আশাশুনির বড়দলে স্ত্রীর অধিকার পেতে চায় প্রতিবন্ধি’র কন্যা অসহায় আছমা খাতুন (৩০)। দীর্ঘ ৬মাস স্ত্রীর অধিকার থেকে বঞ্চিত অসহায় আছমা খাতুন সাংবাদিকদের জানান, গোয়ালডাঙ্গা গ্রামের আঃ ওহাব সরদারের পুত্র আলাউদ্দীন সরদারের সাথে ৪বছর পূর্বে বিবাহ হয় গোয়ালডাঙ্গা গ্রামের প্রতিবন্ধি আবুল সরদারের কন্যা আছমা খাতুনের। বিবাহের পরে বেশ কয়েক মাস স্বামী-স্ত্রীর দামপত্য জীবন ভালই চলছিলো। এসময় আলাউদ্দীন তার ব্যবসার বিভিন্ন অজুহত দেখিয়ে আছমার কাছে থাকা ৭০ হাজার টাকা ও আড়ায় ভরি স্বর্ণের গহনা হাতিয়ে নেয়। প্রায় ৬মাস যাবৎ আছমার কোন সংসার খরচ তার স্বামী বহন করছেন না বলে অভিযোগ করেন। সরল বিশ্বাসী আছমা খাতুন অর্থ ও গহনা হারিয়ে বর্তমানে কিছু না থাকায় স্বামী তাকে তালাক না দিলে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে আসছে। কান্না জড়িত কন্ঠে ভুক্তভোগী আছমা আরও জানান এসকল ব্যাপারে আলাউদ্দীনের বড় বৌ এর হাত আছে। আমার সব কিছু নিয়ে আমাকে বের করে দিলে আমি এখন কিভাবে বেঁচে থাকবো? আমার পিতা একজন শারীরিক প্রতিবন্ধি। এব্যাপারে স্থানীয়রা জানান বহু বিবাহের হোতা আলাউদ্দীন বিয়ের কয়েক মাস পর থেকে তার দ্বিতীয় স্ত্রী আছমাকে অমানুষিক নির্যাতন করে আসছে। তার জীবনে দুইটি স্ত্রী থাকা শর্তেও অসামাজিক কার্যকালাপের দায়ে এক বছর আগে তাকে হাতেনাতে আটক করে আশাশুনি থানা পুলিশ। এব্যাপারে অভিযুক্ত আলাউদ্দীনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তিনি তার দোকানে আসতে বলে দোকান বন্দ করে চলে যান। ফোনে বহুবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। স্ত্রীর অধিকার পেতে আছমা খাতুন প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Related posts