‘আপত্তিকর অবস্থায়’ নারীসহ কবি রবীন্দ্র গোপ আটক

ভিন্ন স্বাদের খবর: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে অবস্থিত বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের সদ্য সাবেক পরিচালক কবি রবীন্দ্র গোপকে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে নারীসহ আটক করা হয়েছে।

গতকাল দুপুরে জাদুঘরের ভেতরে ডাকবাংলো থেকে স্থানীয়রা তাকে আটক করে। পুলিশ নারীসহ রবীন্দ্র গোপকে আটক করে থানা হেফাজতে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। আটককৃত রবীন্দ্র গোপের বিরুদ্ধে এর আগেও অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগ ছিল বলে স্থানীয়রা জানান। তিনি তার অফিসের পেছনেই একটি বেডরুম তৈরি করে সেখানে নারী নিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপ করতেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের সাপ্তাহিক ছুটি। বেলা ১২টার দিকে প্রায় ২৫ বছর বয়সী এক নারী সন্দেহজনকভাবে ডাকবাংলোর কক্ষে প্রবেশ করে।
সেখানে আগে থেকেই রবীন্দ্র গোপ অবস্থান করছিল। ভেতরে প্রবেশের পরেই তারা দরজা বন্ধ করে দেয়। তাদের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের সময়ে বাইরে লোকজনের অবস্থান টের পেয়ে রবীন্দ্র গোপ-এর সহযোগিতায় ওই নারী কৌশলে পকেট গেইট দিয়ে দৌড়ে পালাতে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শীদের হাতে ধরা পড়ে। পরে পুলিশে খবর দিলে সোনারগাঁও থানার এস আই আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে একটি টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রবীন্দ্র গোপ ও সোনিয়া আক্তার মীম নামের এক নারীকে আটক করে থানা হেফাজতে নিয়ে যায়।

জাদুঘরের এক কর্মকর্তা জানান, বুধবার রাতে রবীন্দ্র গোপের বড় ছেলের শ্বশুর মারা যান। সংবাদ পেয়ে তার ২ ছেলে ও নাতিরা সেখানে চলে যায়। এ সুযোগে রবীন্দ্র গোপ সকালে একটি মেয়েকে ডেকে নিয়ে যায় ডাকবাংলোতে। বিষয়টি স্থানীয় লোকজনের চোখে পড়ে। দীর্ঘ সময় মেয়েটি ডাকবাংলো থেকে বের না হওয়ায় তারা সেখানে গিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপের সময় হাতেনাতে রবীন্দ্র গোপকে আটক করে পুলিশ।

সোনারগাঁও থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) আলমগীর হোসেন ও এস আই আবুল কালাম আজাদ জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের সাবেক পরিচালক কবি রবীন্দ্র গোপ ও মীম আক্তার নামে এক নারীকে আটক করেছি। প্রাথমিকভাবে তারা তাদের দোষ অস্বীকার করলেও পরে জিজ্ঞাসাবাদে উভয়ে এলোমেলো বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন। তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

এদিকে স্থানীয়দের অভিযোগ, এর আগেও রবীন্দ্র গোপের বিরুদ্ধে একাধিক নারী কেলেঙ্কারির জোরালো অভিযোগ উঠেছিলো। আটককৃত রবীন্দ্র গোপ বি-বাড়িয়ার সরাইল থানার উকমাইল গ্রামের মৃত উপেন্দ গোপের ছেলে ও সোনিয়া আক্তার মীমের বাড়ি সোনারগাঁয়ে সাদিপুর ইউনিয়নের কাঠালিয়াপাড়া গ্রামে।

উল্লেখ্য, গত ১৭ই মে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক রবীন্দ্র গোপের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের মেয়াদ শেষ হয়। এদিন থেকে অতিরিক্ত পরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন মো. খোরশেদ আলম। পরবর্তীতে গত ৩রা জুন বিসিএস প্রশাসনের উপ-পরিচালক ড. আহমদ উল্লাহ প্রেষনে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক পদে দায়িত্ব পেয়েছেন। এর আগে দায়িত্বে থাকা কবি রবীন্দ্র গোপ গত ১০ বছর আগে জাদুঘরে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পান। এরপর কয়েক দফায় চুক্তি নবায়ন করে তিনি ১০ বছর পার করে দেন। তার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও তিনি এখনো সরকারি বাংলোতে বসবাস করতেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

Related posts