মুস্তাফিজের খেলায় খুশী সাতক্ষীরাবাসী বাংলাদেশ জিতলে বাড়ত আনন্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক: মুস্তাফিজের দোর্দন্ড পারফরমেন্সে আমরা হ্যাপী। আরও হ্যাপী হতাম যদি লাল সবুজের দল জিততে পারতো। তাই তো হলো না ভারত বধ। স্বপ্ন ভঙ্গ হলো বাংলাদেশেরও।

এই জনপদের ছেলে মুস্তাফিজের এমন পারফরমেন্সের কথাই বলছিলেন তার কোচ , ক্রিকেটপ্রেমী ও পরিবারের সদস্যরা। মঙ্গলবার এজবাস্টনে এই ম্যাচে বাংলাদেশে ২৮ রানে হেরেছে ভারতের কাছে। ভারতের ৩১৪ রানের জবাব দিতে গিয়ে থেমে যায় টাইগারদের ইনিংস।

মুশফিক,লিটন একে একে বিদায় নিয়েছেন। সাকিব একাই লড়ছিলেন । ৩৪ তম ওভারে ভেঙ্গে পড়লো সাকিবের প্রতিরোধ প্রাচীরও। ভারতীয় ইনিংসের শুরুতে মুস্তাফিজের বলে সহজ ক্যাচ দিয়েছিলেন এই বিশ^কাপে ভারতের সেরা ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা। কিন্তু তামিম ইকবাল সহজ ক্যাচটি লুফে নিতে ব্যর্থ হন। জীবন পেয়ে সেঞ্চুরি হাঁকান রোহিত যা ভারত বাংলাদেশের জয় পরাজয়ের ব্যবধান গড়ে দেয়।

প্রত্যাশা ছিল অনেক। কিন্তু তার শেষ রক্ষা হলোনা। সেমি ফাইনাল থেকে বাংলাদেশ বিদায় নিলেও সাতক্ষীরার মুস্তাফিজ ৫ উইকেট নিয়ে আমাদের গর্বিত করেছেন। মুস্তাফিজের বড় ভাই মাহফুজার রহমান মিঠু বলেন ‘ আমরা আরও হ্যাপী হতাম যদি বাংলাদেশ জিততো। তবু মুস্তাফিজ ৫৯ রানে ৫ উইকেট নিয়েছে’।

‘৫৩ টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে মুস্তাফিজের অর্জন ৯৮ উইকেট। আর মাত্র দুই উইকেট পেলে আমাদের মুস্তাফিজ উইকেট সেঞ্চুরি লাভ করবেন। সে প্রত্যাশা বুকে ধরে রেখেছি’ বললেন তার কোচ আলতাফ হোসেন। তিনি বলেন ‘মঙ্গলবারের খেলায় বাংলাদেশের বোলিং নৈপুন্য ছিল চমৎকার। কিন্তু ব্যাটিংয়ে আমি হতাশ । তারপরও মুস্তাফিজের বোলিং ভারতকে বেশি দুর এগুতে দেয়নি। এটাই আমাদের ভালো লাগা।

সাতক্ষীরার এক সময়ের মাঠকাঁপানো ক্রিকেটার ফাহিমুল হক কিসলু বলেন ভারত বাংলাদেশের বিপক্ষে জিতেছে ঠিকই। কিন্তু শেষের দিকে আমাদের কাটার মাস্টার মুস্তাফিজের খুব নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের কারণে তারা অনেক বড় টার্গেট দিতে ব্যর্থ হয়। না হলে আরও অনেক বেশি রান করার সম্ভাবনা ছিল। বাংলাদেশ হার মানলেও মুস্তাফিজ হার মানেননি। তার বোলিং প্রতাপ আমাদের বক্ষে আরও শক্তি যুগিয়েছে বলে জানালেন তিনি।

Related posts