ফিংড়িতে উঠানে বৈঠক মুজিব বর্ষ পালনের পূর্বেই সাতক্ষীরাকে বাল্য বিবাহ মুক্ত করার প্রত্যয়

নিজস্ব প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা জেলাকে বাল্য বিবাহ মুক্ত করতে বিশেষ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। সোমবার বিকালে সদর উপজেলার ফিংড়িতে জেলা প্রশাসন আয়োজিত উঠান বৈঠকে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।
বৈঠকে আগামী বছর মুজিব বর্ষ পালনের পূর্বেই সাতক্ষীরা জেলাকে বাল্য বিবাহ মুক্ত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়।
বৈঠকে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাইদ, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কোহিনুর ইসলাম, ফিংড়ি ইউপি চেয়ারম্যান শামসুর রহমান প্রমুখ।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আজহার আলীর সভাপতিত্বে বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি বলেন, বাল্য বিবাহ একটি অভিশাপ। যেভাবেই হোক বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ করতে হবে। শুনেছি কোর্টে গেলে নোটারি পাবলিক করে বয়স বাড়িয়ে বিয়ে দেওয়া হয়। এটা বন্ধ করতে হবে। বাল্য বিবাহ হলে মায়েদের অনেক ক্ষতি হয়। এটা মায়েদেরই বুঝতে হবে। সরকার সর্বত্র উন্নয়ন করছে। এই উন্নয়ন ভোগ করতে হলে সকলকে সজাগ থাকতে হবে। বাল্য বিবাহ, মাদক ও ইভটিজিং প্রতিরোধ করতে হবে।
জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বলেন, মাদক, বাল্যবিবাহ ও ইভটিজিং প্রতিরোধে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এজন্য আইনের সর্বোচ্চ প্রয়োগ করা হবে। তবে, শুধু আইন দিয়ে হবে না, জনগণকে সজাগ থাকতে হবে। আগামী মুজিব বর্ষের আগেই সাতক্ষীরা জেলাকে বাল্য বিবাহ মুক্ত করা হবে।
সদর উপজেলার ফিংড়ি ইউনিয়ন সবচেয়ে বেশি বাল্য বিবাহ প্রবণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজকের পর থেকে ফিংড়িতে কোন বাল্য বিবাহ হলে ওই পরিবারের সদস্যদের ধরে পুলিশে দেবেন। কোনভাবেই বাল্য বিবাহ হতে দেওয়া যাবে না।
তিনি বলেন, মাদক তরুণ সমাজকে ধ্বংস করছে। তাই সন্তানদের সম্পর্কে সতর্ক থাকতে হবে। আপনারা মাদক কারবারীদের তথ্য দিন, তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।
এ সময় জেলা প্রশাসক আরও বলেন, নতুন সামাজিক আন্দোলন ক্লিন সাতক্ষীরা গ্রিন সাতক্ষীরা। আপনারা এই আন্দোলন সফল করতে এগিয়ে আসুন। আপনাদের বাড়ি-ঘর, দোকান-পাট পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন।
সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু বলেন, মাদক, বাল্যবিবাহ ও ইভটিজিং সমাজকে অনিরাপদ করে দিচ্ছে। তাই আমাদেরকে শপথ নিতে হবে। এসব সামাজিক অভিশাপসমূহ দূর করতে হবে।
অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের কণ্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে ফিংড়ি ইউনিয়নবাসী ‘ক্লিন সাতক্ষীরা গ্রিন সাতক্ষীরা’ বাস্তবায়নের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

Related posts