ধরা খেলেন ৬০তম বিয়ে করে বক্কর!

ভিন্ন রকম খবর: জামালপুরের ইসলামপুরে আবু বক্কর (৪৫) নামে এক ব্যক্তি ২৫ বছরে ৬০টি বিয়ে করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। সর্বশেষ বিয়ে করা স্ত্রীর মামলায় রোববার বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

অভিযুক্ত আবু বক্কর উপজেলার গোয়ালেরচর ইউনিয়নের সভারচর গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, আবু বক্কর এলাকায় প্রতারক হিসেবে পরিচিত। ২০ বছর বয়সে প্রথম বিয়ে করেন তিনি। দেশের বিভিন্ন জেলায় গিয়ে নিজেকে অবিবাহিত দাবি করে তিনি আত্বীয়তা করেন। এরপর ব্যবসায়ী, চাকরিজীবী, কখনও আবার স্ত্রী মারা গেছে- বলে ভুয়া ঠিকানা দিয়ে বিয়ে করেন। এভাবে ৬০টি বিয়ে করেছেন বলে জানিয়েছেন আবু বক্কর। বিয়ে করে বিভিন্নভাবে হাতিয়ে নিয়েছেন মোটা অংকের টাকা। অবশেষে ৬০ নম্বর স্ত্রী নেত্রকোনা পূর্বধলার রোজি খানমের মামলায় ধরা পড়েন তিনি।

মামলা সুত্রে জানা গেছে, আবু বক্কর ওরফে প্রতারক বক্কর রোজির এক আত্বীয়ের পূর্ব পরিচিত হওয়ায় ওই এলাকায় যাতায়াত করতেন। সেখানে একটি ওষুধ কোম্পানির জেলা এরিয়া ম্যানেজার হিসেবে পরিচয় দেন। জানান, তার গ্রামের বাড়ি বকশীগঞ্জের কুতুবেরচর গ্রামে এবং নাম শাহীন আলম। পরে প্রতারণা করে রোজিকে বিয়ে করেন। সেই থেকে রোজির বাড়িতে থাকতেন বক্কর। এক পর্যায়ে রোজির পরিবারের কাছে ২ লাখ টাকা দাবি করেন বক্কর। এতে রোজির পরিবার অপারগতা প্রকাশ করে। পরে আবু বক্কর কৌশলে তার শ্যালককে ওষুধ কোম্পানির চাকরি দেওয়ার কথা বলে শ্বশুরের কাছ থেকে ৮০ হাজার টাকা নিয়ে চম্পট দেন। এরপর রোজির সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। পরে স্ত্রী রোজির পরিবার খোঁজ-খবর নিয়ে জানতে পারে ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে বিয়ের নামে প্রতারণা করেছেন বক্কর।

আবু বক্কর পরে পুলিশকে জানান, তিনি এ পর্যন্ত ৬০টি বিয়ে করেছেন এবং তার দুই স্ত্রী ও ৭টি সন্তান রয়েছে। শুধু টাকার লোভেই প্রতারণা করে বিয়ে করতেন তিনি। নিজ উপজেলা ইসলামপুরের ঠিকানা কাউকে দিতেন না।

ইসলামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আনছার আলী জানান, প্রতারণা করে আবু বক্কর ৬০টি বিয়ে করেছেন। বিষয়টি তিনি নিজেই স্বীকার করেছেন। এলাকায় প্রতারক হিসেবেই বক্কর পরিচিত। স্ত্রী রোজি খানমের মামলায় বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে তাকে নেত্রকোনার পূর্বধলা পাঠানো হয়েছে।

Related posts