আশাশুনির লম্পট শিক্ষক কর্তৃক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিনিধি : আশাশুনি কামালকাটি হাইস্কুলের লম্পট শিক্ষক কর্তৃক শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং লম্পট শিক্ষকদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় শোভনালী ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন সড়কে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন হাফিজুল সরদার। বক্তব্য রাখেন, মোস্তাজুল, মোজাফফর গাজী, বিমল কৃষ্ণ মন্ডল প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, শোভনালী ইউনিয়নের কামালকাটি হাইস্কুলের লম্পট শিক্ষক উদয় কান্তি বাছাড়ের বিরুদ্ধে এলাকায় অসামাজিক কর্মকন্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি ওই লম্পট উদয় মাস্টার একই এলাকার স্বামী পরিত্যাক্ত এক নারীর সাথে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকা অবস্থায় আটক করলে স্থানীয় চৌকিদার আবু হাসানসহ কয়েকজন ব্যক্তি তাদের সেখান থেকে ছাড়িয়ে আনে। বিষয়টি পরের দিন জানাজানি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এরআগে অন্য এক নারীর সাথে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকা অবস্থায় শিক্ষার্থীরা দেখে ফেলে। এঘটনায় পত্রপত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলে গাত্রদাহ শুরু ওই শিক্ষক সমাজের কলঙ্গ লম্পট উদয় বাছাড়ের। এঅভিযোগ থেকে নিজেকে বাঁচাতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে ভুল বুঝিয়ে ২ জন এস এস সি পরীক্ষার্থীসহ ৫ জন অভিভাবকের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে। উক্ত মামলার বাদী প্রধান শিক্ষক কিনপুদ বাছাড় স্থানীয় সাংবাদিকদের জানিয়েছেন ‘আমার কিছু জানা নেই, আমি শুধু স্বাক্ষর করেছি’। এঘটনায় শোভনালীসহ আশাশুনি উপজেলার সচেতন মহলের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। তারা বলছেন এ যেন চোরের মায়ের বড় গলা। ওই লম্পট শিক্ষক নিজেকে রক্ষা করতে ২ শিক্ষার্থী ভবিষ্যত নষ্ট করার জন্য নিরিহ এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীদের নামে মামলা করেছে। যা অত্যান্ত ন্যাক্কার জনক। এলাকাবাসী ওই লম্পট শিক্ষকদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ পূর্বক ওই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।

Related posts