আশাশুনির বড়দলে ইউপি সদস্যেরর বিরুদ্ধে মৎস্য ঘের লুটের অভিযোগ


বড়দল (আশাশুনি) প্রতিনিধি : আশাশুনি উপজেলার বড়দলে ভূমি দুস্য ইউপি সদস্য দেবব্রত মন্ডলের বিরুদ্ধে মৎস্য ঘেরের বাসা ভেঙে, ঘেরের বেড়ি বাধ কেটে জাল টেনে ঘেরের মাছ লুটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরেজমিনে দেখা গেছে, বড়দল মৌজার ১ নং খাস খতিয়ানের ৮৪৬ দাগের ২০০শতক জমি ২০১৩ সাল থেেকে একসানা ডিসিয়ার নিয়ে বড়দল গ্রামের মৃত: ইনতাজ গাজীর পুত্র বাছেদ গাজী, আনিচ গাজী, জহোর গাজীর পুত্র মিজানুর গাজী এবং ইসলাম গাজীর পুত্র আনারুল গাজী শান্তিপূর্ণ ভোগ দখল করে আসছিলো। তাদের প্রত্যেকর আলাদা আলাদা ঘেরের বেড়ি মেম্বর ও তার লোক জন মিলে গতকাল রাত আনুমানিক দেড়টাার দিকে কেটে দিয়ে ঘেরের বাসা ভেঙে লন্ডভন্ড করে দিয়েছে। বৈধ্ ডিসিয়ারের মালিক বাছেদ গাজী জানান, মধ্যম বড়দল গ্রামের মনি মন্ডলের পুত্র দেবব্রত মেম্বর ও তারি সহযেগি সুুবোল কুমার, সিবপদ জেলে, নিপপদ মন্ডল, বিভূতি মন্ডল, জান্টু মন্ডল, সুব্রত মন্ডল, মধু মন্ডল সহ  আরও কয়েক জন মিলে সংগবদ্ধ হয়ে রাত আনুমানিক দেড়টার দিকে আমাদের মৎস্য ঘেরে এসে বেড়ি কেটে ও বাসা ভাংচুর করে তাদের মৎস্য ঘের লুট করে চলে যায়। এসময় তারা ঘেরের প্রায় লক্ষাধিক টাকার মাছ ও ঘেরের বাসায় থেকে বেশ কিছু জিনিষ পত্র নিয়ে যায়। এঘটনার পূর্বে মেম্বর ও তার লোক জন আমাদেরকে ফোনে ও সন্মুখে একাধিক বার ঘেরে ছেড়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে আসছিলো। বছরের প্রথম দিকে একই এলাকার মৎস্য ঘের মালিকদের মারপিট করে ঘের দখল করার কারনে পাইকগাছা থানায় মেম্বর দেবব্রত সহ তার সহযোগিদের নামে মামলা হয়। মেম্বর দেবব্রত তার বিষয়ে আনিত অাভিযোগ অস্বীকার করলেও পরবর্তিতে বলেন আমার লোকজন ২০০৯ সাল থেকে ডিসিয়ার কেটেও জমি দখল পাচ্ছে না। আমরা প্রথমে মনে করেছিলাম ওটা পাইকগাছার চাদখালীদের জমি কিন্তু পরে জানলাম ওটা আমাদের বড়দল ওয়ালাদের জমি। এবিষয়ে বড়দল ইউনিয়ন সহকারি ভুমি কর্মকর্তা রনজিত কুমার মন্ডল জানান, বাছেদ গাজীগং কয়েক বছর ধরে উল্লখিত জমি  ডিসিয়ার কেটে আসছে। এবছর ডিসিয়ার দেয়া বন্ধ বিধায় এবছরের ডিসিয়ার তারা এখনও নিতে পারেনি।

Related posts