‘আঙুল কেটে ফেলার ঘৃণিত অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায়’ কলারোয়া ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত

নিজস্ব প্রতিবদেক: কলারোয়ায় ছাত্রলীগ নেতাদের দায়ের কোপে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার চার আঙুল কর্তনের ঘটনায় উপজেলা ছাত্রলীগ কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। একই সঙ্গে তিন ছাত্রলীগ কর্মীকে সংগঠন থেকে বহিস্কার করা হয়েছে।

শনিবার রাতে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান স্বাক্ষরিত এক প্রেস রিলিজে একথা জানানো হয়।

এতে বলা হয়- কলারোয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক জিএম তুষারের ওপর হামলা করে ধারালো দায়ের কোপে তার চারটি আঙুল কেটে ফেলার ঘৃণিত অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় সভাপতি শেখ সাগর হোসেন ও সম্পাদক মেহেদি হাসান নাইস নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের আংশিক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

একই সঙ্গে বাবু, মন্টু ও ইমাম নামের ছাত্রলীগের তিন কর্মীকে বহিস্কার করা হয়েছে।

দুই মাস আগে শেখ সাগর হোসেনকে সভাপতি, মেহেদি হাসান নাইসকে সাধারণ সম্পাদক ও টিপুকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে তিন সদস্যের আংশিক কমিটি গঠন করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এই কমিটি বিলুপ্ত করা হলো বলে জানান জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রেজাউল ইসলাম।

প্রসঙ্গত, শনিবার সকালে বিরোধপূর্ণ জমির দখলের ঘটনায় মারামারির জেরে চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে আসা ইলেকট্রনিক্স দোকানী ও উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক জিএম তুষারের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। ছাত্রলীগের সম্পাদক নাইস ও সভাপতি সাগর হোসেনসহ তাদের সঙ্গীদের দায়ের কোপে তার চারটি আঙুল কাটা পড়ে।

Related posts