আশাশুনির তালবাড়িয়া স্কুলের সহকারী শিক্ষক গুরুপদ’র ৬ মাসের জেল

নিজস্ব প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটি ইউনিয়নের তালবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক গুরুপদ বাছাড়ের ৬ মাসের কারাদন্ড প্রদান করছেন খুলনার দায়রা জজ চতুর্থ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট নুসরাত জবিন। জানাগেছে, ২০১৬ সালের আগষ্ট মাসে বড়দল ইউনিয়নের ফকরাবাদ গ্রামের মৃত বাদল বাছাড়ের পুত্র গুরুপদ বাছাড় খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলার রাড়ুলী গ্রামের হারুনর রশিদের স্ত্রী নাজমা খাতুন এর চাকরী দেওয়ার কথা বলে তার নিকট থেকে চেক দিয়ে চার লক্ষ ষাট হাজার টাকা নেন। কিন্তু তার চাকরি না হওয়ায় ও  চেকে টাকা না থাকায় প্রতারনা ও বিশ্বাস ভঙ্গ সহ নিগোশিয়েবল ইনস্ট্রুমেন্ট এ্যাক্টের ১৩৮ ধারায় নাজমা খাতুন বাদী হয়ে গত ০৬/১১/২০১৬ ইং তারিখে পাইকগাছা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সি/আর- ৮০০/১৬ নং মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় বুধবার সহকারী শিক্ষক গুরুপদ বাছাড়ের ৬ মাসের কারাদন্ড প্রদান করেছেন আদালত। গুরুপদ বাছাড় বর্তমানে পলাতক রয়েছে বলে জানাগেছে। স্থানীয়সূত্রে আরও জানাগেছে, গুরুপদ বাছাড়ের বিরুদ্ধে চাকরীর প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন লোকের নিকট থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাত, স্কুলে হাজীর না হয়ে ক্লাস ফাঁকি দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। তার স্কুলে হাজির না হওয়ার বিষয়ে তালবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অরবিন্দ কুমার সানার কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, তিন মাস আগে মেডিকেল সার্টিফিকেট দিয়ে তিনি দুই মাসের ছুটি নিয়েছিলো। তারপর গত একমাস যাবত ছুটি শেষ হলেও তিনি স্কুলে আসেন না। প্রধান শিক্ষক আরও বলেন, আমি উনার সাথে অনেকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেছি কিন্তু উনার ফোনের সুইচ অফ পেয়েছি। এদিকে তিনি স্কুলে হাজির না থাকায় ঐ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পাঠদানে বিঘœ ঘটছে বলে দাবী অভিভাবকদের। কাজেই বিষয়টি আমলে নিয়ে জেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা শিক্ষা অফিসার সহ যথাযথ কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন অভিভাবক ও সচেতন মহল।

Related posts