তালায় আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : সাতক্ষীরার তালায় কামাল সানা (৩৫) নামে এক আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক গৃহবধূকে ঝাপটে ধরে ছবি তুলে তা ইন্টারনেট ও স্বামীর কাছে পৌছে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় থানায় অভিযোগ হয়েছে । কামাল উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড আওয়মীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক ও দোহার গ্রামের ফাজেল সানার ছেলে।

একই উপজেলার জেঠুয়া গ্রামের জনৈক শফিকুল সরদারের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী (২৫)’র অভিযোগ, তার স্বামী দীর্ঘ দিন যাবৎ যশোরের একটি ইট ভাটায় কাজ করার সুবাদে যশোরে অবস্থান করে আসছিল । অভিযুক্ত কামাল সানা তার স্বামীর দূ:সর্ম্পকের আত্মীয়। যার সুত্র ধরে সে প্রায়ই তাদের বাড়িতে যাতায়াত করত। এক পর্যায়ে আকষ্মিক কামাল তাকে একদিন কুপ্রস্তাব দেয়। তবে এতে সে রাজী না হওয়ায় গত ৫ অক্টোবর দুপুরে ফের কৌশলে তাকে বাড়ীর পাশের নদীর ধারে ডেকে নিয়ে যায় সে। এক পর্যায়ে কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই কামাল তাকে ঝাপটে ধরে। এসময় তার সাথে অজ্ঞাত ব্যাক্তির সহয়তায় তাৎক্ষণিক একাধিক আপত্তিকর ছবি তোলে। এরপর কামাল তাকে ঐ ছবি দেখিয়ে বলে যে, তার প্রস্তাবে রাজী না হলে ঐ ছবি সে ইন্টারনেটে ছেড়ে দিব, এমনকি তার স্বামীর কাছে পৌছে দিয়ে তার সংসার ভাঙার হুমকি দেয়। ঐ দিন কোন রকম নিজেকে রক্ষা করে বাড়ি ফিরে আসতে সক্ষম হন তিনি।
কিন্তু সুচতুর কামাল এরপরও তার পিছু ছাড়েনি। যার ধারাবাহিকতায় গত ১৫ অক্টোবর সন্ধ্যায় ফের ঐ বাড়িতে প্রবেশ করে উক্ত অশ্লীল ছবি দেখিয়ে ও নানাবিধ হুমকি দিয়ে জিম্মি করে তাকে ধর্ষণ করে। শুধু এখানেই শেষ নয়, বিষয়টি কাউকে না বলতে তার স্বামী-সন্তানদের সবাইকে হুমকি দিয়ে চলে যায়। ঘটনার শিকার গৃহবধূ এক প্রকার নিরুপায় হয়ে বিষয়টি কাউকে জানায়নি। তারপরও প্রতারক কামাল সর্বশেষ গত বুধবার তার কাছে থাকা অশ্লীল ছবিগুলো তার স্বামী রফিকুলের কাছে পৌছে দেয়।
সর্বশেষ ঘটনায় তাদের সংসার ভাংতে বসেছে বলে অভিযোগ করেন ঐ গৃহবধূ। এক পর্যায়ে কিংকর্তব্যবিমূঢ় গৃহবধূ তার স্বামীসহ আত্মীয়-স্বজনদের সাথে পরামর্শ করে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঘটনার বিবরণ তুলে ধরে তালা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
এদিকে থানায় অভিযোগের খবর পেয়ে কামাল ও তার সহযোগীরা মামলা তুলে নেওয়ার জন্য নানাবিধ হুমকি দিয়ে আসছে। ধর্ষণের শিকার গৃবধূর অভিযোগ, অভিযোগের পর থেকে তারা রীতিমত চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন।
এব্যাপারে অভিযুক্ত আওয়মীলীগ নেতা কামাল সানার কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, একটি কুচক্রী মহল তার মান-সম্মান নষ্ট করতে ঐ মহিলাকে ব্যাবহার করছে। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।
এ ব্যাপারে জালালপুর ইউনিয়ন আওয়মীলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম মুক্তির কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান,বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমান হলে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে।
বিষয়টি নিয়ে তালা থানার অফিসার ইনচার্জ মেহেদী হাসান রাসেলের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অভিযোগ পেয়েছি বিষয়টা নিয়ে তদন্ত চলছে সত্যতা পেলে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে। এনিয়ে তিনি বিস্তারিত পরে জানাবেন বলেও জানান।

Related posts