সাতক্ষীরার শীর্ষ সন্ত্রাসী জেলা ছাত্রলীগের সেক্রেটারি সাদিকের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি: হত্যা ও ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত পিস্তল উদ্ধারের ঘটনায় সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিকসহ চারজনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ডিবি পুলিশের উপপরিদর্শক হাফিজুর রহমান বাদি হয়ে শনিবার সদর থানায় এ মামলা দায়ের করেন।
মামলার আসামীরা হলেন, সাতক্ষীরা শহরের মুনজিতপুরের সৈয়দ মোখলেছুর রহমানের ছেলে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিক, একই গ্রামের মৃত আরশাদ আলী সরদারের ছেলে আজিজুল ইসলাম, শহরের রসুলপুর মেহেদীবাগের এসএম আনিসুর রহমানের ছেলে শামীম হাসান, ও একই এলাকার মোঃ আব্দুল বারেকের ছেলে চৌকির আহম্মেদ বাবু। এদের মধ্যে আজিজুল ইসলামকে শনিবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।
মামলার বিবরণে জানা যায়, সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিকের কাছের লোক বলে পরিচিত মুনজিতপুরের মাহামুদুর রহমান দীপ ও কালিগঞ্জের উজিরপুরের সাইফুল ইসলামকে কালিগঞ্জ থানার বিকাশ এজেন্ট এর ২৬ লাখ টাকা ছিনতাই এর ঘটনায় বৃহষ্পতিবার পুলিশ গ্রেপ্তার করে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে সাদেকের ব্যবহৃত পিস্তলটি তারই কাছের লোক বলে পরিচিত মুনজিতপুরের আজিজুল ইসলামের কাছ থেকে শুক্রবার সকালে জব্দ করে পুলিশ। নিজের এক আত্মীয় জেলার বড় মাপের আওয়ামী লীগ নেতা ও জনপ্রতিনিধি হওয়ার সুবাদে সাদিক তার দলবল নিয়ে সশস্ত্র চাঁদাবাজি করাতো। আজিজুলের দেওয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ি পুলিশ সাদিকসহ চারজনের নাম উল্লেখ করে ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯(এ) ধারায় সদর থানায় মামলা(৮৮নং) করেন।
এদিকে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সাদিকসহ পলাতকদের ধরতে ষাঁড়াশি অভিযান চালানো হচ্ছে। আজিজুল ইসলামকে শনিবার বিকেলে আদালতের মধ্যেমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Related posts