পিতা-মাতার উপর অভিমান করে স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা


নিজস্ব প্রতিবেদক: ভালভাবে লেখাপড়া করতে বলায় বাবা মায়ের উপর অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে ১০ শ্রেণির এক স্কুল ছাত্র। স্কুল ছাত্রের নাম অনুপম পাল সাম্য(১৫)। সে কেশবপুর সাগরদাঁড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ও পাটকেলঘাটার কুমিরা গ্রামের বরণ কুমার পালের ছেলে।

পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোল্লা জাকির হোসেন বলেন, ছেলেটির বাবা বরণ কুমার পাল কেশবপুরের সাগরদাঁড়ী কলেজের শিক্ষক ও মা শিখা রানী চৌধুরী রাঢ়ি পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। সেই সুবাদে ছেলের লেখাপড়ার প্রতি তাদেরও আগ্রহ ছিল একটু বেশি। শুক্রবার ১০ টার দিকে ছেলেকে ভালভাবে লেখাপড়া করতে বলে। এটি নিয়ে ছেলের সাথে বাবা-মা কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে রাত ১টার দিকে বাথরুমের লোহার দন্ডে বৈদ্যুতিক তারের মাধ্যমে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করে। দীর্ঘক্ষণ বাথরুম হতে না বেরোনোয় বাবা মা ডাকা ডাকি করে। কিন্তু কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে এক পর্যায়ে বাথরুমের দরজা ভেঙে লাশ উদ্ধার করে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

Related posts