দেবহাটায় নির্বাচনী পথসভায় নৌকায় ভোট চাইলেন রুহুল হক এমপি


 

আরাফাত হোসেন লিটন: দেবহাটায় নির্বাচনী পথসভায় সাতক্ষীরা ৩ আসনের সংসদ সদস্য আ.ফ.ম রুহুল হক এমপি বলেন, নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আবারও শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের কথা বলে শেষ করা যাবে না। এ সরকার শিক্ষা বান্ধব সরকার। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষিসহ বিভিন্ন উন্নয়নের ফলে এদেশ আজ তলা বিহীন ঝুড়ি থেকে মধ্যম আয়ের দেশে রুপান্তিত হয়েছে। দেশের বর্তমানে বিদ্যুৎ ঘাট্টি নেই বললেই চলে। সরকার দেশের প্রতিটি এলাকায় ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ করেছে। ভিজিডি, ভিজিএফ, বয়স্কভাতা, বিধবা ভাতাসহ সহ বিভিন্ন সুবিধাভোগীদের সংখ্যা দ্বিগুনেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশে এখন উন্নয়নের জোয়ার বয়ে চলেছে। শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় থাকায় এক সাথে দেশে এত উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে। তাই চলতি বছরের শেষে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে এক সাথে কাজ করতে হবে। তাহলেই আমরা অতি শিঘ্রই উন্নত দেশের মানুষ হিসাবে পরিচিতি লাভ করতে পারব। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ঈদগাহ হাট-বাজার শহীদ মিনার চত্বরে উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য দুলাল চন্দ্র ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার জনবান্ধব সরকার। দেশের মানুষ আজ ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত। তিনি বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সমালোচনা করে বলেন, তারা এদেশকে জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল। তাদের দোষররা ৭৫’র ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে হত্যা করেও খ্যান্ত হয়নি। তারা ২১শে আগস্ট গ্রেনেট হামলার মাধ্যমে আজকের প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সহ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের হত্যা করে এদেশকে পাকিস্থানী রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল। তাদের সে স্বপ্ন সফল হয়নি। তারা আবার ২০১৩ সালে ভয়ঙ্কর জঙ্গিবাদের খেলায় মেতে উঠেছিল। তারা সে সময় সারা দেশে অগ্নি সংযোগ ও প্রেট্রোল বোমা মেরে সাধারণ মানুষ হত্যা করেছিল। তাছাড়া রাস্তায় বেরিকেট দিয়ে টায়ার জ¦ালানো, শেখ হাসিনা ও তার যোগ্য উত্বোরস্বরী ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার রুপকার সজিব ওয়াজেদ জয়ের কবর রচনা করে এদেশের মানুষের স্বাধীনতা হরণ করা সহ সাধারণ মানুষের বাকরুদ্ধ করতে চেয়েছিলেন। তাদের সে স্বপ্ন কোন দিন পূরণ হওয়ার নয়। আমি বিশ^াস করি বাংলাদেশের মানুষ আজ অনেক সচেতন। তাই তারা আবারো নৌকাকে বিজয়ী করে শেখ হাসিনাকেই রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আনবে। এসময়
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও নওয়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ¦ মুজিবর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সখিপুর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা আব্দুল হাই, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক শরিফ বিশ^াস, সদস্য মাহবুবুল হক ফয়জুল, সখিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান, নওয়াপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মাহমুদুল হক লাভলু, কুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি রুহুল কুদ্দুস, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিজয় ঘোষ, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি আবু তাহের, তাঁতিলীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি সদস্য আকবর আলী, সখিপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রব লিটু প্রমুখ।

Related posts