কলারোয়ার অপরিপক্ক আম বিক্রয়ের অভিযোগে ব্যবসায়ীর জরিমানা

কলারোয়া প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার কলারোয়ায় অপরিপক্ক আম পাকিয়ে বিক্রয়ের অভিযোগে এক ব্যবসায়ীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রামম্যাণ আদালত। রোববার বিকালে উপজেলার কেরালকাতা ইউনিয়নের বেলতলা আমের আড়তে এ জরিমানা করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আর এম সেলিম শাহনেওয়াজ ভ্রামম্যাণ আদালত পরিচালনা করেন। ভ্রামম্যাণ আদালত চলাকালে বেলতলার সজিব ট্রেডার্স এন্ড ফল ঘরে উপজেলার পূর্ব কোটা গ্রামের আ: হামিদের ছেলে আয়ুব আলী (৪৫) অপরিপক্ক ন্যাংড়া আম পাকিয়ে বিক্রয়ের সময় হাতে নাতে আটক হয়। এসময় তাকে ভ্রামম্যাণ আদালত ১০হাজার টাকা জরিমানা করেন। এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের সহযোগিতা করেন-উপজেলার সিনিয়র কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মহাসীন আলী, কলারোয়া থানার পুলিশ অফিসার ও ইউএনওর বেঞ্চসহকারী এমএ মান্নান। উল্লেখ্য-গত ৯ মে নিরাপদ আম বাজারজাত করণের বিষয় নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যলয়ে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় নিরাপদ আম বাজারজাত করণের বিষয় নিয়ে সময় নির্ধারণ করা হয়। সেখানে বলা হয়েছে- গোবিন্দভোগ আম-১২/৫/১৯, তারিখের পর, গোপালভোগ-১৫/৫/১৯ তারিখের পর, হিমসাগর-২২/৫/১৯ তারিখের পর, ন্যাংড়া আম-২৯/৫/১৯ তারিখের পর, আ¤্রপালি আম-৮/৬/১৯ তারিখের পরে বাজারজাত করণের সময় বেঁধে দেয়া হয়। অথচ-একটি চক্র সাতক্ষীরা আমের মার্কেট নষ্ট করতে আম পাকার আগেই অপরিপক্ক আম পেড়ে তাতে বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশিয়ে আম পাকিয়ে বাজারজাত করছে। তাতে করে বিশ্ববাজারে সাতক্ষীরার আমে চাহিদা কমে যাবে। একই সাথে দুর্নাম হয়ে সাতক্ষীরার আমের মার্কেট বন্ধ হয়ে যাবে বলে এধরনের ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। বেলতলা আমের মোকামে এই অপরিপক্ক আমে ছেয়ে গেছে। সকালে ওই স্থানে গেলে দেখা যাবে যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়ক আম ভর্তি গাড়ীতে পুরা সড়ক জ্যামে আটকে রয়েছে। এই বেলতলা আমের আড়তে প্রায় ৫০/৬০ দোকানী আম ক্রয় করে তা উচ্চ দরে বিক্রয়ের জন্য ট্রাক ভর্তি করে ঢাকায় পাঠাচ্ছেন। এমন খবর পেয়ে বিকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আর এম সেলিম শাহনেওয়াজ অভিযান পরিচালনা করেন। ম্যাজিস্ট্রেট এর উপস্থিত টের পেয়ে অনেক আম ব্যবসায়ী আম ফেলে পালিয়ে যায়। এদিকে কিছু কিছু আম ব্যবসায়ী তাদের আমের আড়তে বসে বিষাক্ত কেমিক্যাল স্প্রে করতে দেখা গেছে।

Related posts