আশাশুনিতে বেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশংকা

মোস্তাফিজুর রহমান, আশাশুনি: আশাশুনি উপজেলার বড়দল ইউনিয়নের কেয়ারগাতি খেয়াঘাট সংলগ্ন বেড়ীবাঁধটি দীর্ঘদিন যাবত ঝঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। গতকয়েক দিনের টানা বর্ষণে বেড়ীবাঁধে আরও বেশী ফাটল ধরে নদী ভাঙ্গন বৃদ্ধি পেয়েছে। ভাঙ্গন ভয়াবহ আকার ধারন করায় এলাকার জন সাধারণ আতংকে দিন কাটাচ্ছে। বর্তমানে ১ফুট এর মতো ভেড়ীবাঁধ থাকায় স্থানীয়রা বেড়া দিয়ে রেখেছে যাতে জনগন চলাচল করে সর্বশেষ অংশটুকু ভেঙ্গে না যায়। নদীতে পানি বৃদ্ধি ঘটলেই এলাকার মানুষের মধ্যে ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। যেকোন মুহুর্তে বাঁধ ভেঙ্গে কেয়ারগাতী, জামালনগর, ডুমুরপোতা, খেড়ুয়ারডাঙ্গা, গোয়ালডাঙ্গা নড়েরাবাদ, ফকরাবাদসহ কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হওয়ার আশঙ্খা রয়েছে। বেতনা ও মরিচ্চাপ নদীর মোহনার কাছাকাছি পানি উন্নয়ন বোর্ডের গেয়ারগাতী এই বেড়ী বাঁধটি দীর্ঘকাল যাবৎ খুবই জরাজীর্ণ ও হুমকীগ্রস্থ। আগে কয়েকবার বাঁধটি ভেঙ্গে বা উপচে এলাকা প্লাবিত হয়েছে। কিন্তু এ পর্যন্ত স্থায়ী বা টেকসই সংস্কার ও যথাযথ ভাবে বাঁধ পুনঃ নির্মানের ব্যবস্থা করা হয়নি। ফলে প্রতি বছর বাঁধটিতে ভাঙ্গন লেগেই আছে। বাঁধটির আশু সংস্কার ও টেকসই বাঁধ রক্ষার কাজ করার বিষয়টি মাথায় নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা ১৪/০৬/১৯ তারিখে জরাজীর্ণ বাঁধটি সরেজমিন পরিদর্শনে আসেন। তার একদিন পরে বালু ভর্তি বস্তা দিয়ে কিছুটা সংস্কার করা হয়। কিন্তু গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণে বালুভর্তি বস্তাগুলো নদীগর্ভে বিলীন হয়েগেছে। অবিলম্বে ভাঙ্গন রোধে টেকসই বাঁধের কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এলাকাবাসি।

Related posts