ব্যর্থ মেয়রকে স্কার্ট-ব্লাউজ পরিয়ে ঘোরাল নগরবাসী!

ভিন্ন স্বাদের খবর: নির্বাচনের সময় জনগণের কাছে জনপ্রিয় হতে নানারকম পরিকল্পনা হাতে নেন প্রার্থীরা।

বিশেষকরে ভোটের আগে প্রচারের সময় ভোটারসহ সাধারণ মানুষের কাছে বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকেন তারা।

ভোটে জেতালে নাগরিক সমস্যাগুলো সমাধান করে দেবেন বলে নানা এজেন্ডা সামনে নিয়ে আসেন তারা। ভোটের রাজনীতিতে এ বিষয়টি সমসময় চর্চা করে থাকেন রাজনীতিবিদরা।

পরে প্রতিশ্রুতি রাখতে পারবেন কিনা সে বিষয়ে কোনো চিন্তা না করেই এমনটা করে থাকেন তারা।

এর ব্যতিক্রমী ছিলেন না মেক্সিকো দেশটির দক্ষিণ অংশে হুইক্সটন প্রদেশের শহর সান আন্দ্রেস পুয়ের্তো রিকো শহরের এক মেয়র।

তার নাম জাভিয়ের জিমেনেজ। তিনিও ভোটের আগে জনগণকে প্রলুব্ধ করতে কয়েকটি নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

পরে জনগণের ভোটে নির্বাচিত হলে সেসব প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে পারেননি বা করেননি। আর এর জন্য তাকে শাস্তি দিল সান আন্দ্রেস পুয়ের্তো রিকোর নগরবাসীরা।

শাস্তি হিসেবে মেয়রকে নারীদের পোশাকে ঘুরতে হলো শহরের কয়েকটি এলাকা। আর সে দৃশ্য দেখল নগরবাসী।

সম্প্রতি এ ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন মেক্সিকোর একটি সংবাদমাধ্যম। এছাড়াও আর্ন্তজাতিক গণমাধ্যম ফক্স নিউজে এ বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটি জানায়, নির্বাচনের আগে শহরের পানিবন্টন ব্যবস্থার জন্য পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দ করবেন বলে জনগণকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মেয়র জাভিয়ের জিমেনেজ। সান আন্দ্রেস পুয়ের্তো রিকো শহরের বাসিন্দাদের অভিযোগ, ক্ষমতায় এসে কথা মতো সেই কাজ করেননি মেয়র।

নানা অযুহাত দেখিয়ে শুধু সময়ক্ষেপণ করেছেন। তাই নগরের বাসিন্দারা তাকে শহরময় স্কার্ট ও ব্লাউজ পরিয়ে ঘুরাতে বাধ্য করে।

ঘটনাটির একটি ছবিওপ্রকাশ করেছে গণমাধ্যমটি। সেখানে দেখা গেছে মেয়র একাই নন, সঙ্গে তার এক ঘনিষ্ঠ সহযোগীকেও এ শাস্তি ভোগ করতে হয়েছে।

এ বিষয়ে শাস্তি ভোগকারী ওই মেয়র জানিয়েছেন, আমি প্রতিশ্রুতি পালনের চেষ্টা করেছি। কিন্তু তহবিলে পর্যাপ্ত অর্থ ছিল না। তাই সেই কাজ করে উঠতে পারিনি। এতে আমার দোষ দেখছি না। কিন্তু নগরবাসী তা বুঝলো না।

https://www.facebook.com/watch/?v=506210006820329

Related posts