জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক চঞ্চলের পদত্যাগ

শিক্ষা সংবাদ: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম আবু সুফিয়ান চঞ্চল পদত্যাগ করেছেন।

অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ তুলে উপাচার্য ফারজানা ইসলামের পদত্যাগের দাবিতে কয়েক দিন ধরে উত্তপ্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হলেও সেখানে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের একটি অংশ।

এরই মধ্যে মঙ্গলবার আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা করেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এতে নারী শিক্ষার্থী ও শিক্ষকসহ অন্তত ২৫ জন আহত হন।

ওই দিনই আবু সুফিয়ান চঞ্চল পদত্যাগপত্র জমা দেন। তবে খবরটি সাংবাদিকরা জানতে পারেন বৃহস্পতিবার।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক আহসান হাবিব বলেন, “মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় দপ্তর সেলে চঞ্চল অব্যাহতিপত্র জমা দিয়েছেন। তবে কী কারণ দেখিয়ে তিনি অব্যাহতি চেয়েছেন সে বিষয়ে আমি পুরোপুরি বলতে পারব না। সম্ভবত ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে অব্যাহতি চেয়েছেন।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্প ঘিরে ছাত্রলীগকে ঈদ সেলামির নামে অর্থ দেওয়া এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পদচ্যুত সাবেক সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে উপাচার্যের কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগ উঠলে অগাস্টের শেষ দিকে চঞ্চল ক্যাম্পাস ছাড়েন।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, “চঞ্চল কেন্দ্রীয় দপ্তর সেলে অব্যাহতিপত্র জমা দিয়েছেন। কিন্তু তা এখনও গ্রহণ করা হয়নি। এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে তা পরে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।”

এদিকে চঞ্চলের অব্যাহতি চাওয়ার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানা আগে কিছু জানতেন না বলে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, “আমি আগে কিছু জানতাম না। সাংবাদিকদের মাধ্যমেই আমি বিষয়টা জানতে পারি। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ যে নির্দেশনা দেবে আমরা সে অনুযায়ী কাজ করব।”

২০১৬ সালের ২৭ ডিসেম্বর জুয়েল রানাকে সভাপতি ও সুফিয়ান চঞ্চলকে সাধারণ সম্পাদক করে এক বছরের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হয়। সে অনুযায়ী প্রায় দুই বছর আগে এই কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে আবু সুফিয়ান চঞ্চলের যোগাযোগের চেষ্টা করে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

Related posts