সর্বশেষ সংবাদ-
কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গোলাগুলিতে নিহত ৭অবৈধ মোবাইল ফোন বন্ধ হচ্ছে নাইকবাল সন্দেহে কক্সবাজারে যুবক গ্রেপ্তারআছিয়া বেগম স্মৃতি পাঠাগারের কার্যনির্বাহী পরিষদ গঠনসাংবাদিক শামীম পারভেজ এর সুস্থ্যতা কামনায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের বিবৃতিছেলের হাতে মার খেয়ে আবারো হাসপাতালে সাতক্ষীরার মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক বজলুরসাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সাঃ) পালিতউদ্যোক্তাদের ব্যবসা বৃদ্ধির জন্য ফলোআপ মিটিংপুজামন্ডপ ও হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘর ভাংচুরের প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় প্রথম আলোর বন্ধুসভার মানববন্ধনসাতক্ষীরায় যাত্রীবাহী বাস খাদে: নিহত-১: আহত-১০

সরকারি খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা কলেজে  ঈদ-ই মিলাদুন্নবী (স.) পালন”

দেবহাটা প্রতিনিধি :
সরকারি নির্দেশনার আলোকে সাতক্ষীরা জেলার দেবহাটা উপজেলার সখীপুরে ঐতিহ্যবাহী সরকারি খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা কলেজে ২০ অক্টোবর বুধবার বেলা ১১ টা হতে কলেজের শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবে বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মাদ (স.) এর জন্মদিন উপলক্ষে পবিত্র ঈদ-ই মিলাদুন্নবী (স.) অনুষ্ঠানে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কলেজ শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ের সহকারী অধ্যাপক মো. মইনুদ্দিন খান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে আলোচনা রাখেন প্রাণিবিদ্যা বিভাগীয় প্রধান মো. আজহারুল ইসলাম, হিসাববিজ্ঞান বিভাগীয় প্রধান আলহাজ্জ মো. আকবর আলী ও একই বিষয়ের প্রভাষক আলহাজ্জ মো. মাসুদ করীম।

শিক্ষক মো. আবু তালেব এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন ব্যবস্থাপনা বিষয়ের প্রভাষক মো. মনিরুজ্জামান (মহসিন)।
সভাপতি সহ বক্তাগণ রাষ্টীয়ভাবে এমন একটি মহতি অনুষ্ঠান পালনের উদ্যোগ গ্রহণ করায় প্রধানমন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ ও মহানবী (স.) এর জীবনাদর্শ বাস্তব জীবনে অনুসরণ এবং পবিত্র কোরআন ও হাদীসের আলোকে সমাজে সকল ধর্মের মানুষের সাথে সম্প্রীতি বজায় রেখে চলার আহবান জানান।
সবশেষে সমাজে সম্প্রীতি বজায় রাখা এবং মুসলিম উম্মাহর সুখ,শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন অালহাজ্জ মো. আকবর আলী।

মিলাদুন্নবী (স.) অনুষ্ঠানে সব ধর্মের শিক্ষক-কর্মচারী এবং শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
গুজব ছড়ানোর অভিযোগে কলেজ শিক্ষিকা আটক

দেশের খবর : সম্প্রতি দেশজুড়ে চলমান ধর্মীয় উত্তেজনাকে ঘিরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পুরোনো ভিডিওতে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বেগম বদরুন্নেসা কলেজের সহকারী অধ্যাপক রুমা সরকারকে আটক করা হয়েছে।

বুধবার (২০ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর বেইলি রোডের নিজ বাসা থেকে তাকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

র‌্যাবের লিগ্যাল আ্যন্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহার করে একটি ভিডিও ভাইরাল করেন রুমা সরকার। যে ভিডিও অনেক আগের এবং সম্প্রতি কোনো ঘটনার সঙ্গে মিল নেই। এছাড়া তিনি ফেসবুক লাইভে এসে উসকানিমূলক তথ্য ছড়িয়েছেন। এতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি বিনষ্ট হতে পারে বলে আশঙ্কা ছিলো। এ জন্য তাকে আমরা হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছি।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মামলা হবে কি-না এখনই বলা যাচ্ছে না। পরবর্তীতে আইনি প্রক্রিয়া মেনে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক হামলা, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় মানববন্ধন

আসাদুজ্জামান : কুমিল্লা ও রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক হামলা, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় মানববন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়েছে। সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আয়োজনে বুধবার বেলা ১১টায় প্রেসক্লাবের সামনে আশাশুনি-সাতক্ষীরা সড়কে উক্ত মানববন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়।

প্রেসক্লাব সভাপতি মমতাজ আহমেদ বাপীর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সুজনের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য দেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ সুভাষ সরকার, জেলা নাগরিক কমিটির আহবায়ক আনিসুর রহিম, জেলা পুলিশিং কমিটির সভাপতি ডাঃ আবুল কালাম বাবলা, সিনিয়র সাংবাদিক কল্যাণ ব্যানার্জি, প্রেসক্লাব সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব,

জেলা মন্দির সমিতির সভাপতি বিশ্বনাথ ঘোষ, সহ-সভাপতি অ্যাড. সোমনাথ ব্যানার্জি, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার শীল, মানবাধিকার কর্মী মাধব দত্ত, আশাশুনি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরন চক্রবর্তী, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক এম.কামরুজ্জামান ও মোস্তাফিজুর রহমান উজ¦ল,

প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহি কমিটির সদস্য সেলিম রেজা মুকুল, সাবেক সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কালিদাস কর্মকার, সাবেক যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ইয়ারব হোসেন, প্রেসক্লাব সদস্য মনিরুল ইসলাম মনি, জেলা নাগরিক উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সহ-সভাপতি সাংবাদিক কাজী শওকত হোসেন ময়না, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদের সাধারন সম্পাদক শরিফুজ্জামান শরিফ, কালীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক সুকুমার দাশ বাচ্চু, আশাশুনি প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক এম.কে হাসান, প্রথম আলো বন্ধু সভার সাধারন সম্পাদক গোলাম হোসেন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, শারদীয় দূর্গাপুজা চলাকালিন কুমিল্লার নানুয়ার দীঘির পাড় মন্দিরে পরিকল্পিতভাবে রেখে দেওয়া পবিত্র কোরআন শরীফকে নিয়ে কুমিল্লা, রংপুর, চট্টগ্রাম, চাঁদপুর, নোয়াখালি, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিমা ভাঙচুসহ হিন্দুদের বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাট শেষে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। লুটপাট ও অগ্নিসংযোগে বাধা দেওয়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের বহু মানুষকে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে। বক্তারা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। এ সময় তারা হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবী জানান। ##

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী

ডেস্ক রিপোর্ট : আজ বুধবার (২০ অক্টোবর) পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)। এদিন মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর জন্ম ও ওফাত দিবস। জন্ম-ওফাতের স্মৃতিময় দিন আজ ১২ রবিউল আউয়াল। এক হাজার ৪৫১ বছর আগের এই দিনে সৌদি আরবের মক্কা নগরে ৫৭০ খ্রিষ্টাব্দের এই দিনে মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) জন্ম নেন। ৬৩২ খ্রিষ্টাব্দের একই দিনে তিনি ইহলোক ত্যাগ করেন।

বাংলাদেশে দিনটি পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) নামে পরিচিত। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের পরিবেশে দিবসটি পালন উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

সারাবিশ্বের মুসলমানরা এই দিনকে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) হিসেবে পালন করেন। এর আগে করোনা পরিস্থিতির কারণে সেভাবে পালন করা হয়নি। কিন্তু এবার করোনা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে তাই সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

রাজধানীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবন আলোকসজ্জ্বায় বর্ণিল করা হয়েছে। বিভিন্ন ধর্মীয় ও রাজনৈতিক দল জশনে জুলুস বের করবে। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন।

বাণীতে তারা বলেন, মহান আল্লাহ আমাদের প্রিয়নবি হজরত মুহাম্মদকে (সা.) এ পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন শান্তি, মুক্তি, প্রগতি ও সামগ্রিক কল্যাণের জন্য ‘রাহমাতুল্লিল আলামিন’ তথা সারা জাহানের রহমত হিসেবে। নবি করিমকে (সা.) বিশ্ববাসীর রহমত হিসেবে আখ্যায়িত করে পবিত্র কোরআনে মহান আল্লাহ বলেছেন, ‘আমি আপনাকে সমগ্র বিশ্বজগতের জন্য রহমতরূপে পাঠিয়েছি’ (সূরা আল-আম্বিয়া, আয়াত: ১০৭)। মুহাম্মদ (সা.) এসেছিলেন তওহিদের মহান বাণী নিয়ে। সব ধরনের কুসংস্কার, অন্যায়, অবিচার, পাপাচার ও দাসত্বের শৃঙ্খল ভেঙে মানবসত্তার চিরমুক্তির বার্তা বহন করে এনেছিলেন তিনি। বিশ্ববাসীকে তিনি মুক্তি ও শান্তির পথে আসার আহ্বান জানিয়ে অন্ধকার যুগের অবসান ঘটিয়েছিলেন ও সত্যের আলো জ্বালিয়েছেন। তিনি বিশ্ব-ভ্রাতৃত্ব প্রতিষ্ঠা, ন্যায় ও সমতাভিত্তিক সমাজ গঠন ও মানবকল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত করে বিশ্বে শান্তির সুবাতাস বইয়ে দিয়েছিলেন।

মহানবির জন্মের সময় ও এর আগে গোটা আরব অন্ধকারে নিমজ্জিত ছিল। তারা আল্লাহকে ভুলে নানা অপকর্মে লিপ্ত হয়ে পড়েছিল। আরবের সর্বত্র দেখা দিয়েছিল অরাজকতা ও বিশৃঙ্খলা। এ যুগকে বলা হতো আইয়ামে জাহেলিয়াত। তখন মানুষ হানাহানি ও কাটাকাটিতে লিপ্ত ছিল ও মূর্তিপূজা করতো। এই অন্ধকার যুগ থেকে মানবকুলের মুক্তিসহ তাদের আলোর পথ দেখাতে মহান আল্লাহ রসুলুল্লাহকে (সা.) পাঠান এই পৃথিবীতে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
কুমিল্লায় হামলার মাস্টারমাইন্ড গ্রেফতার : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

দেশের খবর : পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন বলেছেন, কুমিল্লায় মন্দিরে হামলার মাস্টারমাইন্ডকে ইতোমধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো বিবৃতিতে কথা বলেন তিনি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষ যখন আনন্দের সঙ্গে দুর্গাপূজা উদযাপন করছিল, তখন দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের নানা স্থান এবং প্রতিমা হামলার খবর প্রকাশিত হয়।

‘বাংলাদেশ সরকার দ্ব্যর্থহীনভাবে এইসব ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে এবং হিন্দু সম্প্রদায়ের ভেতরে ও বাইরে থেকে প্রতিক্রিয়াগুলোকে গুরুত্ব সহকারে দেখেছে। তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা হিসাবে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি) বাহিনী দেশের ২২টি জেলায় মোতায়েন করা হয় সাধারণ মানুষকে সহায়তা করার জন্য’।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিজেই অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনার আশ্বাস দিয়েছিলেন। আইন প্রয়োগকারী এবং তদন্তকারী সংস্থার কাছে উপলব্ধ প্রযুক্তিগত উপায় অবলম্বন করার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন তিনি। তিনি সর্বপ্রকার উসকানিতে সংযম বজায় রাখতে এবং গুজব না ছড়াতে সবাইকে আহ্বান জানান।

তিনি সবাইকে যে কোনো মূল্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার আহ্বান জানান। সরকারের সিনিয়র নেতারা বেশ কয়েকটি ক্ষতিগ্রস্ত স্থান পরিদর্শন করেছেন। ক্ষতিগ্রস্তদের হিন্দু সম্প্রদায়ের সদস্যদের পর্যাপ্ত সুরক্ষা এবং ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়েছেন। এই ঘটনাগুলোর সঙ্গে সংশ্লিষ্টতায় ৭১টি মামলা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকার উদ্বেগ প্রকাশ করে যে, কিছু নির্দিষ্ট স্বার্থান্বেষী মহল রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে এই ধরনের পূর্বপরিকল্পিত হামলা চালাচ্ছে। এটা দুঃখজনক যে, ৫০ বছর আগে বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধী চক্রগুলো এখনো সহিংসতা, বিদ্বেষ ও গোঁড়ামিকে উস্কে দিতে তাদের বিষাক্ত প্রচারণা এখনো জারি রেখেছে। তারা দেশের অন্যতম বড় ধর্মীয় উৎসবকে ইচ্ছাকৃতভাবে লক্ষ্য করে আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের ধর্মনিরপেক্ষ, অসাম্প্রদায়িক এবং বহুত্ববাদী প্রশংসাপত্রকে ক্ষুণ্ণ করার চেষ্টা করছে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
দেশের পরিস্থিতি অশান্ত করতে গুজব ছড়ানো হচ্ছে ভারত থেকে

দেশের খবর : জমিজমা নিয়ে বিরোধে রাজধানীর পল্লবীতে দুর্বৃত্তদের হাতে নৃশংসভাবে খুন হওয়া মো. সাহিনুদ্দিনকে হত্যার সময় ধারণ করা ভিডিও ‘নোয়াখালীর হিন্দু মহাজোট কর্মী যতন শাহ হত্যাকাণ্ডের’ ভিডিও বলে গুজব ছড়ানো হয়েছে। পাশের দেশ ভারতের বেশ কয়েকজন নাগরিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটার ব্যবহার করে ধর্মীয় উস্কানি ও গুজব ছড়াতেই এই ভিডিও ছড়ায়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

দেশটি থেকে ব্যবহার করা বেশ কয়েকটি ফেসবুক ও টুইটার আইডি পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি করতে চক্রটি এই ধরনের কাজ করেছে। কলকাতা থেকেই প্রথমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘নোয়াখালীর যতন শাহ হত্যাকাণ্ড’ শিরোনামে অন্য ঘটনার ভিডিও আপলোড করা হয়। পরে তা বাংলাদেশের বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া হয়।

১৯ অক্টোবর ছড়ানো এই ভিডিও ফুটেজটি মূলত জমিজমা বিরোধে গত ১৬ মে রাজধানীর পল্লবীতে দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হওয়া মো. সাহিনুদ্দিনের। ঘটনার সময় কেউ একজন তা ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দিয়েছিলেন। ঘটনার পরই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত প্রায় সব আসামিকেই গ্রেপ্তার করে।

এছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে কুমিল্লায় কোরআন অবমাননার পর ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা ও হত্যার ভিডিও বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছাড়া হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গুজব ছড়াতে এবং দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অশান্ত করতেই এই ধরনের ভিডিও ছড়ানো হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি সূত্র জানায়, ‘প্রযুক্তি বিশ্লেষণ করে আমরা দেখেছি, ভিডিওটি কলকাতা থেকে দেবদৃতা ভৌমিক নামে একজন ভারতীয় নাগরিক সর্বপ্রথম ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে ছড়িয়ে দেন। তাছাড়া দেবদাস মন্ডল নামে আরও এক ব্যক্তি কলকাতা থেকেই টুইটারে ভিডিওটি আপলোড করেন। যতন দাসের নামে সাহিনুদ্দিন হত্যাকাণ্ডের ভিডিওর ক্যাপশনে দেবদাস লিখেছেন, ‘বাংলাদেশের নোয়াখালীর পূজামণ্ডপে হিন্দু মহাজোট কর্মী যতন সাহা হত্যার ভিডিও ফুটেজ। দোষীদের এখনো গ্রেপ্তার করা হইতেছে না কেন?’

সম্প্রতি দেশে ঘটে যাওয়া হামলার বিষয়ে আজ দুপুরে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেছেন, যারা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির চেষ্টা করছেন, উস্কানি দিচ্ছেন, তাদের খুব শিগগির গ্রেপ্তার করা হবে। তাদের জবাব দিতেই হবে। তারা মিথ্যা তথ্য ও গুজব ছড়িয়ে কি ফায়দা লোটার চেষ্টা করছেন! কুমিল্লার মূল অভিযুক্ত পালিয়ে বেড়াচ্ছে। তাকে শিগগিরই গ্রেপ্তার করা হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, আজ পর্যন্ত কোনো পূজামণ্ডপে কোনো কিছু ঘটেনি। কিন্তু এবার দেখছি অপ্রীতিকর কিছু ঘটনা ঘটে গেছে। আসলে ঘটানো হয়েছে।

অন্যদিকে এলিট ফোর্স র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখা থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সাম্প্রতিক সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্বার্থান্বেষী মহল মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে। বিগত বিভিন্ন সময়ে ঘটে যাওয়া নৃশংস ঘটনার ভিডিও ফুটেজ ব্যবহার করে সাম্প্রতিক সময়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে উস্কানিমূলক প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

গত ১৬ মে রাজধানীর পল্লবীতে নৃশংসভাবে শাহীন নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। তখন ওই হত্যাকাণ্ডের ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেই হত্যাকাণ্ডের মূলহোতাসহ আসামিদের র‌্যাব গ্রেপ্তার করেছিল; যারা এখন কারাগারে আছে। বর্তমানে একটি কুচক্রী মহল পল্লবীর সেই হত্যাকাণ্ডের ভিডিও ফুটেজ’কে ব্যবহার করে নোয়াখালীর যতন সাহা’কে এভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে অপপ্রচার করছে। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক এবং ন্যাক্কারজনক, যা অমানবিকও বটে।

র‌্যাব আরও জানায়, গত ১২ অক্টোবর ভারতের ত্রিপুরার কমলপুর এলাকার পূজামণ্ডপ ও দোকানপাটে আগুন লাগার ঘটনার একটি ভিডিও ফুটেজকে রংপুরের পীরগঞ্জের হিন্দুবাড়িতে আগুন দেওয়ার ভিডিও ফুটেজ বলে অপপ্রচারের মাধ্যমে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে চক্রান্তকারীরা। এছাড়াও দেড় বছরের পুরনো বিভিন্ন ঘটনাকে সাম্প্রতিক সময়ের ঘটনা বলে অপপ্রচার চালাচ্ছে একটি চক্র। এরূপ উস্কানিমূলক ও বিভ্রান্তিকর তথ্যের মাধ্যমে অপপ্রচার চালানোর সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে র‌্যাবের সাইবার নজরদারি ও গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রয়েছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার উদ্দেশ্যে গুজব ছড়ানো ও উস্কানিদাতাদের বিরুদ্ধে র‌্যাব কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে মাধ্যমে সচেষ্ট থাকবে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
ওমানকে হারিয়ে বিশ্বকাপে টিকে থাকলো বাংলাদেশ

খেলার খবর : ওমানের টপ অর্ডার ব্যাটাররা ভীষণ চাপে রেখেছিল বাংলাদেশকে। ক্যাচ মিস কিংবা উইকেট না আসায় অস্বস্তিতে ছিল লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। তবে সাকিব আল হাসান আর মুস্তাফিজুর রহমানের দারুণ বোলিংয়ে উল্টো চাপে পড়ে ওমান। শেষ পর্যন্ত তারা ১২৭ রান করতে সক্ষম হয়। আর ম্যাচটা ২৬ রানে জিতে বাংলাদেশ টিকে রইলো বিশ্বকাপে।

লক্ষ্য তাড়ায় প্রথম ওভারেই আসে ১২ রান। তবে দ্বিতীয় ওভারে বাংলাদেশকে সাফল্য এনে দেন মোস্তাফিজ। আকিব ইলিয়াসকে ফিরিয়ে দেন প্রথম বলেই। উইকেট হারিয়েও হাল ছাড়েনি ওমান। ৫ ওভারে তুলে নেয় ৪০ রান। ৬ষ্ঠ ওভারের প্রথম বলেই ফিরতে পারত যতীন্দর সিং।

মোস্তাফিজের বলে ক্যাচ ফেলে দেন মাহমুদউল্লাহ। তবে যতীন্দরকে না পারলেও একই ওভারে ফিজ ফিরিয়ে দেন কাশিয়াপ প্রজাপতিকে। ১০ ওভার শেষে ওমানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭০ রান। দলীয় ৮১ রানে ফেরেন জিশান মাকসুদ।

১২ রান করা জিশানকে ফেরান মেহেদী। নিজের তৃতীয় ওভারে সাকিব ফিরিয়ে দেন বিপজ্জনক হতে থাকা জিতেন্দরকে। ৩৩ বলে ৪০ রান করে আউট হন জিতেন্দর। ১৫ তম ওভারে এক শ ছাড়ায় ওমানের রান। তবে দ্রুত আরও তিন ব্যাটারকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন সাইফউদ্দিন ও সাকিব।

তিন উইকেটের দুটিই নেন সাকিব। এমনকি হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও জাগিয়েছিলেন সাকিব। ১০৫ রানে ৭ উইকেট হারানোর পর আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি ওমান। বাংলাদেশ ম্যাচ জিতে নেয় ২৬ রানে।

এর আগে ওমানের বিপক্ষে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। একাদশে সৌম্য সরকারের জায়গায় দলে আনা হয় মোহাম্মদ নাঈমকে। ওমানের পেস আক্রমণের সামনে বেশ সতর্কভাবে শুরু করে বাংলাদেশ। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের চতুর্থ বলেই লিটনকে ফিরিয়ে উল্লাসে মাতেন ওমানি পেসার কলিমুল্লাহ।

তবে রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান লিটন। জীবন পেয়েও ইনিংস বড় করতে ব্যর্থ হন লিটন। পরের ওভারে বিলাল খানের লেগবিফোরের আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার। পরে রিভিউ নিয়ে লিটনকে বিদায় করে ওমান। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে আসে বাংলাদেশের প্রথম বাউন্ডারি। পরের ওভারে বাংলাদেশকে দ্বিতীয় ধাক্কা দেন ফাইয়াজ বাট। দুর্দান্ত এক ফিরতি ক্যাচে ফিরিয়ে দেন তিন নম্বরে উঠে আসা মেহেদী হাসানকে। রানের খাতায় খুলতে পারেননি এই অলরাউন্ডার।

তৃতীয় উইকেট জুটিতে সাবধানী হয়ে খেলতে শুরু করেন নাঈম ও সাকিব। তবে একের পর এক ডটে চাপ বাড়ছিল রানরেটে। প্রথম ৬ ওভারে বাংলাদেশের রান ছিল ২৯। এরপর ব্যক্তিগত ১৮ রানে জীবন পান নাঈম। ক্যাচ মিস করে নাঈমকে ছয় উপহার দেন যতীন্দর সিং। বাজে ফিল্ডিং প্রদর্শনীতে পরের ওভারে দ্বিতীয়বার জীবন পান নাঈম।

বোলিংয়ে শুরু থেকে ছন্দে থাকলেও, ফিল্ডিং ও ক্যাচিংয়ে শুরু থেকেই ভালো করতে পারেনি ওমান। ওমানি ফিল্ডারদের ভুলের সুযোগ নিয়ে বাংলাদেশের ইনিংস এগিয়ে নেন নাঈম-সাকিব। ১০ ওভারে এ দুজন দলকে নিয়ে যান ৬৩ রানে। ধীরে ধীরে রানের গতিও বাড়ান এ দুজন। বিশেষ করে ব্যাট হাতে সাকিব ছিলেন বেশ সাবলীল। ১২ তম ওভারে চার-ছয়ে ১৭ রান নিয়ে স্ট্রাইক রেটও কিছুটা বাড়িয়ে নেন সাকিব-নাঈম। ১৪ তম ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ একশ ছাড়ায়।

একই ওভারে ফিরে যান সাকিব। শুরু থেকে বাজে ফিল্ডিং করা ওমান সাকিবকে ফেরায় দুর্দান্ত এক রান আউটে। আকিব ইলিয়াসের সরাসরি থ্রুতে ফেরেন ২৯ বলে ৪২ রান করা এই অলরাউন্ডার। বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি নুরুল হাসান সোহানও। ফিরছেন ৩ রান করে। তবে প্রান্ত আগলে ফিফটি পূরণ করে নেন নাঈম। ১ রান করে আউট হয়ে যান আফিফ হোসেনও।

শেষ দিকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে আউট হয়ে যান নাঈমও। ৪৯ বলে ৬৪ রান করেন এই ওপেনার। দলের সংগ্রহে তেমন অবদান রাখতে পারেননি মুশফিকও। ৬ রান করে ফিরেছেন ফাইয়াজ বাটের বলে নাসিম খুশিকে ক্যাচ দিয়ে। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১৫৩ রান।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের উদ্যোগে শান্তি শোভাযাত্রা

নিজস্ব প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ শাখা আয়োজনে রংপুরের পীরগঞ্জ সহ সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে চলমান সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ” শান্তি শোভাযাত্রা” ও সম্প্রীতি সমাবেশ কর্মসূচি পালন করা হয়ছে ।

সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ ( সামেক) ছাত্রলীগের আয়োজনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

মঙ্গলবার ( ১৯ অক্টোবার) দুপুরে বৃষ্টি উপেক্ষা করে (সামেক) ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আজমল হোসেনের নেতৃত্বে একাডেমিক ভবনের সামনে থেকে একটি শোভাযাত্রা বের করে পুরো ক্যাম্পাসে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুঁখে দিতে বিভিন্ন স্লোগানে দেন তারা

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সামেক ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নাঈম ইসলাম সজীব,দপ্তর সম্পাদক রিফাত হোসেন। ছাত্রলীগ নেতা সুমন কুমার শীল,রসিফুর রহমান দিপ,খালিদ হোসেন প্রমুখ।

মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বক্তারা বলেন,বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে এই দেশ স্বাধীন করা হয়েছিলো, এই দেশে সকল ধর্মের মানুষের সমান অধিকার।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest