Tala Picture (29.08.16) (Medium)সেলিম হায়দার, তালা: তালা উপজেলার জাতপুর সমকাল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠ এর শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল পোষাক (ইউনিফর্ম) বিতরণ করা হয়। সোমবার সকালে সমকাল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ফরিদ হোসেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমকাল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক মোঃ আলমগীর হোসেন। শিক্ষক স্বদেশ কুমার মল্লিকের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতপুর-আলাদীপুর বাজার কমিটির সভাপতি এসএম কামাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক হাসান সরদার, বিদ্যাপীঠ উন্নয়ন কমিটির আব্দুল হাই, সমাজ সেবক ইয়াকুব আলী বিশ্বাস, প্রাক্তন শিক্ষক আবাদুস সবুর, আবুল হাসান সরদারসহ বিদ্যাপীঠের ম্যানেজিং কমিটির নেতৃবৃন্দ, অভিভাবক, শিক্ষক, সাংবাদিক, ছাত্র-ছাত্রীসহ স্থানীয় সুধী মহল। এ সময় স্কুলের শতাধিক ছাত্র-ছাত্রীর মাঝে উক্ত স্কুল পোষাক (ইউনিফর্ম) বিতরণ করা হয়।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

DSC01710 (Medium)মাহফিজুল ইসলাম আককাজ: সাতক্ষীরায় জঙ্গি ও সন্ত্রাস বিরোধী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকালে সাতক্ষীরা নিউ মার্কেট মোড়ে (শহিদ আলাউদ্দিন চত্বরে) সাতক্ষীরা পৌর আওয়ামীলীগের আয়োজনে এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে সাবেক পৌর মেয়র শেখ আশরাফুল হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সাহাদাৎ হোসেন, আওয়ামীলীগ নেতা মীর মোশারফ হোসেন মন্টু, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সম্পাদক মুনসুর আহম্মেদ, এপিপি এড. আব্দুল লতিফ, এড. নওশের আলী, জয়নাল আবেদীন জোসি, পৌর আ’লীগ নেতা শেখ শফি উদ্দিন সফি, জেলা যুব মহিলালীগের সাধারণ সম্পাদক সাবিহা হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগ নেতা কামরুল ইসলাম, জিমি প্রমুখ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের নারান চন্দ্র মন্ডল, লিটন মীর্জা, আনোয়ার হোসেন মিলন, আসাদুজ্জামান, হযরত আলী বাবু, মতিয়ার রহমান, হকার্সলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল গফ্ফার, মো. সাইফুল ইসলামসহ আওয়ামীলীগের বিভিন্ন অংগ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

সেলিম হায়দার, তালা: তালা উপজেলার জাতীয় শ্রমিকলীগ সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি লক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলার জাতীয় শ্রমিকলীগ উদ্যোগে সোমবার বিকালে তালা ডাকবাংলায় আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলার জাতীয় শ্রমিকলীগ সভাপতি সূর্ষ্যকান্ত পাল।
উপজেলার জাতীয় শ্রমিকলীগ সাধারণ সম্পাদক মো. সেলিম হোসেন পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, উপজেলার জাতীয় শ্রমিকলীগ সহ-সভাপতি আব্দুল মান্নান, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহবোদ্দীন মোড়ল, শ্রমিকলীগ  নেতা দেব্রনাথ, হারুনা আর রশিদ, আসাদ মোড়াল, আব্দুল গফুর, রেজওয়ান, লিটন সরদার, ইলিয়াস হোসেন, আমিনুর রহমান, জাহাঙ্গির হোসেন ফটিক, ওদুদ গাজী প্রমুখ।
আলোচনায় সভায় উপজেলার জাতীয় শ্রমিকলীগ সাধারণ সম্পাদক মো.সেলিম হোসেন বলেন সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও নাশকতা মূলক কর্মকান্ডে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

Bangdhoa (Medium)এম বেলাল হোসেন: সাতক্ষীরাবাসীর প্রধান সমস্যা এখন জলাবদ্ধতার। সামান্য বৃষ্টি হলেই প্রতি বছর পানিতে হাবু ডুবু খেতে হয় সাতক্ষীরাবাসীকে। এবারও এর ব্যতিক্রম নয়। গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে সাতক্ষীরার অধিকাংশ এলাকা পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। ইতোমধ্যেই ঘর ছেড়েছেন অনেক পরিবার। এ জলাবদ্ধতার মূল কারণ হলো জেলার নদীর জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ। জেলার প্রভাবশালীরা ক্ষমতার দাপটে মরিচ্চাপ, বেতনা, খোলপেটুয়া ও ইছামতির চর দখল করে গড়ে তুলছেন তাদের স্থাপনা। যে কারণে নদীর পানির অবাধ চলাচল বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। ফলে মরে যাচ্ছে নদী। আর সৃষ্টি হচ্ছে স্থায়ী জলাবদ্ধতার।
সম্প্রতি জানা গেছে সদর উপজেলার ব্যাংদহা এলাকায় মরিচ্চাপ নদীর চর দখল করার মহা উৎসব চলছে। নদীর জমি দখল করে তা আবার প্লট আকারে বিক্রিও করা হচ্ছে। এতে করে এলাকার সাধারণ মানুষ ফুঁসে উঠেছে। তবে ওই দখলদাররা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কথা বলতে ভয় পাচ্ছেন তারা। আর ওই জমি দখল সম্পর্কে পানি উন্নয়ন বোর্ড অবগত থাকলেও ব্যবস্থা গ্রহণ নিয়ে রীতিমত রশি টানাটানি করছেন পানি উন্নয়নের বোর্ডের কর্মকর্তারা। এক কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি অন্য কর্মকর্তার কাছে পাঠিয়ে দেন, আবার অন্য কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ‘স্যারের’ সাথে যোগাযোগ করার কথা বলেন।
এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে ব্যাংদহা স্লুইস গেটের সামনে মরিচ্চাপ নদীর চর পড়েছে। সেই চর দখল করে সেখানে গড়ে তোলা হচ্ছে পাকা দোকানঘর।
সাতক্ষীরা সদর উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক স্যামুয়েল ফেরদৌস পলাশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সাথে জোকসাজসে ভরাট হওয়া চর বিক্রি করেছেন। প্রতি বর্গ হাত জমি ২৫ হাজার টাকা দরে ৯ জনের কাছে বিক্রি করেছেন। যদিও জমির কোন কাগজ পত্র ক্রেতারা পায়নি। তবে ইতোমধ্যেই তাদের কাছ থেকে পুরো টাকা গ্রহণ করা হয়েছে।
তারপরও ৯ জনের প্রত্যেকে ১০০ বর্গ হাত জমি কিনে সেখানে পাকা ঘর নির্মান কাজ চলছে করছেন ৩মাস আগে থেকে। ইতোমধ্যে ৫ জনের পাকা ঘর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বাকি ৪জনের কারো ঘরের লিন্টন পর্যন্ত আবার কারো পিলার তোলা হয়েছে। এলাকাবাসী বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে গেলে দোকানদাররা বলেন, প্রভাবশালী নেতা স্যামুয়েল ফেরদৌস পলাশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের পোল্ডার নং ২ এর এসও আবুল হোসেন ও সার্ভেয়ার বিমল কুমারকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন, বিরোধিতা করে কোন লাভ হবে না। এছাড়া পলাশ সদর উপজেলা আ.লীগের প্রভাবশালী নেতা হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেন না কেউ।
এলাকাবাসী ও ক্রেতাদের দেয়া তথ্যমতে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ব্যাংদহা মৌজায় জেএল নং ১৭ এবং ১ নং খাস খতিয়ানের ৮৫ ও ১৫৩৮ নং দাগে ৫০০ হাত দৈঘ্য ও ৪০ হাত প্রস্থের ওই জমির একই ইউনিয়নের গোবরদাড়ী গ্রামের আহাদ আলী সরদারের ছেলে শ্যামুয়েল ফেরদৌস পলাশ বর্গহাত প্রতি ২৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেছেন। তাদের কোন কাগজ পত্র দেয়া হয়নি। এই জমি উত্তর গাভা গ্রামের জমায়েত সানার ছেলে রবি সানা, মৃত রাধাপদ প্রামানিকের ছেলে ধনা প্রামাণিক, দক্ষিণ গাভা গ্রামের মৃত অধীর সরকারের ছেলে গোপাল সরকার, মৃত সন্তোষ প্রামানিকের ছেলে দেবাশীষ প্রামাণিক, উত্তর গাভা গ্রামের মৃত হাকিম সানার ছেলে আইয়ূব সানা, গোবরদাড়ী গ্রামের ছহিল উদ্দীনের ছেলে মিন্টু সরদার এবং জোড়দিয়া গ্রামের শেখ নুজ্জামানের ছেলে মারুফ সহ ৭ জন ব্যাক্তি কিনেছেন। স্লুইস গেটের সামনে অবৈধ চর বিক্রি করার ঘটনায় এলাকাবাসী হতাশ হয়ে পড়েছেন।
এলাকাবাসী আরো জানান, ফিংড়ি, গোবরদাড়ী, গাভা, জোড়দিয়াসহ প্রায় কয়েক হাজার গ্রামে পানি ওই স্লুইস গেট দিয়ে প্রবাহিত  হয়ে মরিচ্চাপ নদীতে পড়ে। কিন্তু নদীর এসব চর যদি দখল করা তবে পানি প্রবাহিত হতে না পেরে সৃষ্টি হবে স্থায়ী জলাবদ্ধাতার। এলাকাবাসীর দাবি বর্তমান সরকার যেখানে দেশের দক্ষিণ পশ্চিম অঞ্চলকে জলাবদ্ধতার হাত থেকে মুক্ত করতে প্রায় প্রতি বছরই কোটি কোটি টাকা দিয়ে নদী ও খাল খনন করছেন। সেখানে সরকারকে বৃৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে কতপয়ি স্বার্থন্বেষী মহল মেতেছেন নদী ও খাল দখলে। এসব দখলদারদের অবিলম্বে যদি আটকানো না যায়। তবে এ অঞ্চলের মানুষকে পানিতে ডুবে মরতে হবে প্রতিবছরই। চোখের জলে ভাসতে হবে এ অঞ্চলের মানুষের। মাত্র ২/১ মানুষের আর্থিক লোভের কারণে পানিতে ডুবে মরবে হাজার হাজার মানুষ। এবিষয়ে ফিংড়ী ইউনিয়ন ভূমি অফিসের নায়েব মুনসুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ওই জমি পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে যে কারনে আমার কোন কিছু করার ক্ষমতা নেই। বলে তিনি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।
এব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ড-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী অপূর্ব কুমার ভৌমিক এর সাথে গতকাল সকাল ১০.৫৫ মিনিটে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আপাতত আমরা কোনো ডিসিআর দিতে পারছিনা। কিন্তু কীভাবে ঐ জমিতে স্থাপনা তৈরি হচ্ছে তা জানা নেই। আপনি এবিষয় সার্ভেয়ার বিমাল বাবুর সাথে যোগাযোগ করেন। ১১টায় আমার মিটিং আছে তাই এখন আর কথা বলতে পারবো না। এদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ড-২ এর সার্ভেয়ার বিমল বাবুর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি তার স্যার অপূর্ব ভৌমিকের সাথে যোগাযোগ করার কথা বলে এড়িয়ে যান। এব্যাপারে এড. স্যামুয়েল ফেরদৌস পলাশের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

DSC01716মাহফিজুল ইসলাম আককাজ: সাতক্ষীরা পাবলিক লাইব্রেরির নির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকাল সাড়ে ৫টায় সাতক্ষীরা পাবলিক লাইব্রেরির কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির সভাপতি আবুল কাশেম মোঃ মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা পাবলিক লাইব্রেরির সহ সভাপতি প্রফেসর আব্দুল হামিদ, গাজী আবুল কাশেম, সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামরুজ্জামান রাসেল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মহিউদ্দিন হাশেমী তপু, অর্থ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল, সাহিত্য সম্পাদক তৃপ্তি মোহন মল্লিক, নির্বাহী সদস্য মোঃ আমিনুল হক, প্রভাষক রেজাউল করিম, অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, শেখ তৌহিদুর রহমান ডাবলু, লায়লা পারভীন সেঁজুতি, বরুন ব্যানার্জী, শেখ হারুন উর রশিদ প্রমুখ।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
সাতক্ষীরা কেমিস্ট ড্রাগিস্ট সমিতির মানববন্ধন

শফিকুল ইসলাম ॥ ১৫ ও ২১ আগস্ট নির্মম হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় সাতক্ষীরা কেমিস্ট ড্রাগিস্ট সমিতির আয়োজনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সকাল ১১টায় শহরের সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের উপর অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন হাফিজুল ইসলাম। বিসিডিএস’র অফিস সহকারী আলমগীর হোসেনের পরিচালনায় মানববন্ধনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, আলহাজ্ব মনিরুল ইসলাম, রকিব উদ্দিন, শেখ রফিকুর রহমান মিন্টু, আবু হোসেন খোকন, মিজানুর রহমান, আনোয়ার হোসেন, আব্দুল জব্বার, শহীদুল ইসলাম, স্বপন কুমার সরকার, মুক্তিযোদ্ধা জামান উদ্দিন, ফারিয়ার, সাইফুল ইসলাম প্রমুখ। ১৫ ও ২১ আগস্টে হামলকারীরাই জঙ্গিবাদের উস্কানি দিচ্ছে। ৭১’র পরাজিত শক্তি জামায়াত-শিবিরই সারা দেশে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের সম্পৃক্ত। অবিলম্বে জামায়াত-শিবিরসহ নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান বক্তারা।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
কলারোয়ার জালালাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা শওকত গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ২নং জালালাবাদ ইউনিয়নের বার বার নির্বাচিত চেয়ারম্যান মাস্টার শওকত হোসেন গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। সোমবার দুপুরে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি উপজেলার শংকরপুর গ্রামের মৃত মোহর আলীর ছেলে।তিনি কয়লা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক। কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ এমদাদুল হক শেখ জানান, সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে তিনি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন নাশকতা মামলার আসামী জালালাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শওকত আলী ইউনিয়ন পরিষদে বসে কাজ করছেন। পরে থানার এস আই রাজ্জাকের নেতৃত্বে সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা তাকে ওই পরিষদ থেকে গ্রেফতার করেন। তার বিরুদ্ধে নাশকতার অভিযোগ ও মামলা আছে বলে তিনি জানান।
চলতি বছরের ২৭ শে জুলাই তাকে একটি মামলার আসামী ছিলেন তিনি। যার জিআর নং ২০৭/১৬। তিনি জামায়াতের রোকন  ও থানা কমিটির সদস্য।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন সাতক্ষীরা জেলা শাখার মানববন্ধন

বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন সাতক্ষীরা জেলা শাখার উদ্যোগে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৯ আগস্ট বেলা ১১টায় জেলা শিক্ষা অফিসের সামনে সাতক্ষীরা- খুলনা মহাসড়কের উপর অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের নব নির্বাচিত জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ মাও. এএএম ওজায়েরুল ইসলাম। নব নির্বাচিত জেলা সেক্রেটারী আলহাজ্ব মাও. আলতাফ হোসেনের পরিচালনায় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, জেলা শিক্ষা অফিসার কিশোরী মোহন সরকার, উপাধ্যক্ষ মাও. মোঃ হাবিবুর রহমান, ড. মোঃ আবুল হাসান, মাও. আবুল হাসান, মাও. রুহুল কুদ্দস, মাও. আশরাফ হোসাইন, মাও. শামসুর রহমান, মাও. আব্দুর রউফ, মাও. জালাল উদ্দিন, মাও. আব্দুল্লাহ, মাও. মোঃ ফজলুর রহমান, মাও. মশিউর রহমান, মাও. মোসলেম আলী, মাও. আব্দুস সাত্তার, মাও. হাবিবুর রহমান, মাও. গোলাম সরোয়ার, মাও. আবুল কালাম আযাদ, মাও. হারুন অর রশিদ, মাও. নওশেরুজ্জামান, মাও. নজরুল ইসলাম(কালিগঞ্জ), মাও. নজরুল ইসলাম, মাও. খবির উদ্দিন, মাও. মহসীন, মাও. মনিরুল ইসলাম, মাও. সাখাওয়াতউল্ল্যাহ প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ইসলাম শান্তি-মৈত্রী, সম্প্রীতি- সদ্ভাব, উদারতা- পরমতসহিষ্ণুতা, ভ্রাতৃত্ব- সৌহার্দ্য, সহাবস্থান-সহনশীলতার ধর্ম। ইসলামে অশান্তি, অস্থিরতা, অসহনশীলতা- অসহিষ্ণুতা, অন্যায় – অত্যাচার জুলুম নির্যাতন, সন্ত্রাসবাদ-জঙ্গিবাদের কোন স্থান নেই। সন্ত্রাস ও মানুষ হত্যা ইসলামে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। চরমপন্থার এই ভুলপথে গিয়ে এদেশের যুব সমাজ যেন ধ্বংস না হয় সে বিষয়ে সজাগ থাকার আহ্বান জানান বক্তারা। এছাড়া আগামী ৩ সেপ্টেম্বর জেলার প্রত্যেক মাদ্রাসায় সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী আলোচনাসভা আয়োজন করার আহ্বান জানানো হয়।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest