সর্বশেষ সংবাদ-
সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থা ও আটকের প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় মানববন্ধনআবারও নারী কেলেংকারীর অভিযোগ! বাগেরহাটের ডিসি বদলিআদালতে সাংবাদিক রোজিনা, ৫ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশভারতে করোনায় একদিনে ৪৩২৯ জনের মৃত্যুর নতুন রেকর্ডসাংবাদিক রোজিনাকে নির্যাতন : স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্রিফিং বয়কটের ডাকপুলিশের ৪ ডিআইজি অতিরিক্ত আইজিপি হলেনকলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার পরিকল্পনাসাতক্ষীরায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা ভারত ফেরতদের খাবার দিল জেলা পরিষদবাস-ট্রেন-লঞ্চ আরো কিছুদিন বন্ধ থাকুক : স্বাস্থ্যমন্ত্রীদেশের মানুষের মাসে মাথাপিছু আয় বেড়ে সাড়ে ১৫ হাজার টাকা

dsc01852-copy
নিজস্ব প্রতিবেদক : সাতক্ষীরায় আসন্ন শারদীয় দূর্গা পূজা উদযাপন উপলক্ষে প্রস্ততি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে এ প্রস্ততি সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুনসুর আহমেদ, জেলা পুলিশ সুপার মো. আলতাফ হোসেন, ১৭বিজিবি’র অধিনায়ক মেজর মো. আব্দুল্লাহ আল-মামুন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এ. এফ. এম এহতেশামূল হক, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আসাদুজ্জামান বাবু, এন. এস. আই’র উপ-পরিচালক মো. মোজাম্মেল হক, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদ, সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আতিকুল হক, তালা উপজেলা চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার রবীন্দ্রনাথ দাস, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মনিরা পারভীন, তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফরিদ আহম্মেদ, আশাশুনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুষমা সুলতানা, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মনোরঞ্জন মুখার্জী, সাধারণ সম্পাদক এড. অনিত মুখার্জী, জেলা হিন্দু বৈদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বিশ্বজিৎ সাধু, সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার শীল, জেলা মন্দির সমিতির সভাপতি মঙ্গল কুমার পাল, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাষ্টের সহকারি পরিচালক লিটন শিকদার, তালা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রনব ঘোষ বাবলু, রামপদ দাস প্রমুখ। আগামী ১৭ অক্টোবর থেকে শারদীয় দূর্গোৎসব শুরু হবে এবং ১১ অক্টোবর প্রতিমা বির্সজনের মধ্য দিয়ে দূর্গোৎসব শেষ হবে। এবারে  ৫শ’ ৫৭টি পূজা মন্ডপে শারদীয় দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ১শ’ ৩ টি পূজা মন্ডপ, আশাশুনি উপজেলায় ১শ’ ১টি পূজা মন্ডপ, তালা উপজেলায় ১শ’ ৭৯ টি পূজা মন্ডপ, কলারোয়া উপজেলায় ৪০টি পূজা মন্ডপ, কালিগঞ্জ উপজেলায় ৫২টি পূজা মন্ডপ, শ্যামনগর উপজেলায় ৬৩টি পূজা মন্ডপ ও দেবহাটা উপজেলায় ১৯টি পূজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গা পূজা হবে বলে জানা গেছে। ৪দিন ব্যাপি শারদীয় দুর্গোৎসব সুষ্ঠ সুন্দর ও সফলভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে  আসন্ন শারদীয় দুর্গা পূজা উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভায় বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। জেলার যে সকল পূজা মন্ডপে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে সেগুলোকে ঝুকিপূর্ণ চিহ্নিত করে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে সির্দ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সভায় জানান হয় জেলায় সফল ভাবে শারদীয় দূর্গা পূজা উদযাপনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

ad-large
নিজস্ব প্রতিবেদক: সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকা থেকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জামাত নেতা একাধিক নাশকতা মামলার আসামী এড. আবু বক্কর সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সে ইসলামী ল-ইয়ার্স ফোরামের সদস্য। সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফিরোজ হোসেন মোল্যা জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই রফিক ও এসআই পাইক দেলোয়ারসহ সঙ্গীয় ফোর্স পলাশপোল হাসপাতাল এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। সে জামাতের সক্রিয় কর্মী এবং একাধিক নাশকতার মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest
Exif_JPEG_420

Exif_JPEG_420

প্রেসবিজ্ঞপ্তি : আট বছর আগে বায়না করলেও জমির মালিক ওয়াদা অনুযায়ী জমি রেজিস্ট্রি করতে টালাবাহানা করছেন। আজ না কাল, কাল না পরশু এভাবে দীর্ঘদিন কাটিয়ে এখন বলছেন জমি রেজিস্ট্রি হবে না, টাকাও ফেরত হবে না। একজন গ্রাম পুলিশ এই অভিযোগ করে বলেন তিনি গরিব মানুষ। জমি কেনার টাকা দিয়ে এ কুল ও কুল দুকুলই হারিয়েছি বলে উল্লখ করেন তিনি।
মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন পাটকেলঘাটার  ওমরপুর গ্রামের গ্রাম পুলিশ মো. আবদুল মজিদ। তিনি বলেন পারিবারিক কারণে তিনি কয়েক বছর আগে কলারোয়া উপজেলার শুভংকরকাটি(গোগ)গ্রামে বসবাস শুরু করেন। সেই সুবাদে তিনি  শুভংকরকাটি মৌজার ১৪ টি দাগে পাঁচ বিঘা জমি ক্রয়ের জন্য চার লাখ আশি হাজার টাকা বায়না করেন। ওই গ্রামের রহিমবক্স গাজির ছেলে জমির মালিক মতিয়ার রহমান, আতিয়ার রহমান, অজিয়ার রহমান, মশিয়ার রহমান ও নাজমুল হুদার কাছে এই টাকা নগদ প্রদান করেন তিনি। একটি স্ট্যাম্পে লেখালেখি ও স্বাক্ষর করে এই টাকা লেনদেন হয় বলে জানান তিনি। এতে স্ট্যাম্পে লিখিতভাবে সাক্ষী হন শুভংকরকাটির  ছবেদ আলি ছেলে আবদুল হাই ও তুলশীডাঙ্গা গ্রামের নুর আলির ছেলে সামছুর রহমান। তারা এ বিষয়টি সম্পর্কে অবগত রয়েছেন বলে জানান মজিদ। আবদুল মজিদ জানান স্ট্যাম্পে স্বক্ষর করে বায়না পত্র তৈরির পর দীর্ঘ সময় কেটে গেলেও মতিয়ার গং জমি রেজিস্ট্রি করে দেন নি। রেজিস্ট্রির কথা বললে তারা নানাভাবে টালবাহানা করতে থাকেন। এমনকি টাকা ফেরত চাইলেও তারা মারমুখী হয়ে উঠছেন। তারা আমার ছেলের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে জেল খাটাবেন বলে হুমকি দিয়েছেন। তিনি জানান জমি না পেয়ে তার ছেলেমেয়েরা এখনও ভাড়া বাড়িতে বসবাস করছেন। তিনি অভিযোগ করে আরও বলেন তারা তার ছেলে রাজু আহমেদকে মারধর করার হুমকি দিচ্ছেন। এমন কি তাকে জীবনে মেরে ফেলার হুমকিও দিচ্ছেন তারা। আবদুল মজিদ বলেন এসব কারণে তাদের বিরুদ্ধে কলারোয়া থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন বিবাদীদের  কয়েক আত্মীয় ভারতের মুম্বইতে বসবাস করেন। বছরে একবার করে দেশে ফিরে এসে তারা তার ছেলেদের ওপর নির্যাতন চালায় বলে অভিযোগ করেন আবদুল মজিদ। অসহায় গ্রাম পুলিশ আবদুল মজিদ হয় জমি না হয় বায়নার টাকা ফেরত চেয়েছেন। এ ব্যাপারে তিনি সাতক্ষীরা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

dsc00306-copy
নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘সকলের জন্য পর্যটন, সার্বজনীন পর্যটনের অভিগম্যতা।’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সাতক্ষীরায় বিশ্ব পর্যটন দিবসের র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপলক্ষে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় সাতক্ষীরা নিউ মার্কেটের সামনে থেকে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভায় মিলিত হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এ.এফ.এম এহতেশামূল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মোঃ মহিউদ্দিন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক এ.এন.এম মঈনুল ইসলাম, সরকারি পলিটেকনিক স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মোদাচ্ছের আলী, এনডিসি আবু সাঈদ প্রমুখ

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

images-road
নিজস্ব প্রতিবেদক : সাতক্ষীরার তালা উপজেলার পাটকেলঘাটায় সড়ক দূর্ঘটনায় একজন নিহত ও দুই জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের পাটকেলঘাটা চারাবটতলা নামক স্থানে এ দূর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত ব্যক্তি হলেন, সাতক্ষীরা শহরের উত্তর কাটিয়া মিলবাজার এলাকার আব্দুল হামিদের ছেলে প্রাইভেটকার চালক সাইদুর রহমান (৪০) এবং আহত দুই জন হলেন, একই এলাকার আলমগীর ও ইমরান। পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহিবুল ইসলাম জানান, সকালে পাটকেলঘাটা চারাবটতলা নামক স্থানে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা সাতক্ষীরাগামী একটি প্রাইভেটকার (যার নং ঢাকা মেট্রো-১২-৬৬৮৪) নিয়ন্ত্রন হারিয়ে রাস্তার পাশের গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাইভেটকার চালক সাইদুর মারা যান। এসময় আহত হন আলমগীর ও ইমরান। আহতদের উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

imagesডেস্ক রিপোর্ট: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব:) আ স ম হান্নান শাহ সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। আজ মঙ্গলবার ভোরে সিঙ্গাপুরের র‍্যাফেল হার্ট সেন্টারে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। (ইন্নালিল্লাহি….রাজিউন)।

বিএনপি চেয়ারপারসনের গণমাধ্যম শাখার কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান বলেন, ‘সিঙ্গাপুর সময় ভোর ৫টা ৫ মিনিটে হান্নান শাহ হাসপাতালে মারা যান। সেখানে তাঁর ছোট ছেলে শাহ রেজা নূর এবং মেয়ে শারমিন হান্নান রয়েছেন। তারা বিষয়টি জানিয়েছেন।’
আ স ম হান্নান শাহর মৃত্যুতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবং মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গভীর শোক প্রকাশ করে শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।

গত ৬ সেপ্টেম্বর অসুস্থ অবস্থায় ৭৭ বছর বয়সী হান্নান শাহকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয়। সেখানকার নীবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) তাঁকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। ভর্তি হওয়ার দুদিন পর হান্নান শাহর শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়। পরে ১০ সেপ্টেম্বর আবার তাঁর অবস্থার অবনতি ঘটে। এর পর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে বিদেশ পাঠানোর কথা বলেন চিকিৎসকরা।
গত ১১ সেপ্টেম্বর রাতে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে হান্নান শাহকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়। র‌্যাফেল হার্ট হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. অ্যালভিন এনজির নেতৃত্বে একদল চিকিৎসক হান্নান শাহর শরীরে অস্ত্রোপচার করেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগে ভুগছিলেন।
হান্নান শাহ মরদেহ খুব দ্রুতই দেশে নিয়ে আসা হবে জানিয়েছেন শায়রুল কবির খান। তিনি জানান, সিঙ্গাপুরের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে দ্রুতই তাঁর মরদেহ দেশে নিয়ে আসা হবে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সাপ

কর্তৃক Daily Satkhira

_91384342_nintchdbpict000269676844ডেস্ক রিপোর্ট: ব্রাজিলের একটি নির্মাণ প্রকল্পের কর্মীরা পারা প্রদেশের একটি গুহায় ৩৩ ফুট লম্বা একটি এ্যানাকোন্ডা সাপ খুঁজে পেয়েছেন – যাকে মনে করা হচ্ছে পৃথিবীর দীর্ঘতম সাপ।

গিনেস রেকর্ড বুক অনুযায়ী বন্দী অবস্থায় পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সাপটি আছে আমেরিকার কানসাসের একটি প্রতিষ্ঠানে। মেডুসা নামের এই পাইথনটির দৈর্ঘ্য ২৫ ফুট ২ ইঞ্চি।

কিন্তু ব্রাজিলের উত্তরাঞ্চলীয় পারা প্রদেশের আলতামিরা গুহায় পাওয়া এ্যানাকেন্ডা সাপটির দৈর্ঘ্য যে আরো ৮ ফুট বেশি তাই নয়, এর ওজন হচ্ছে ৬৩ স্টোন বা ৩৭৮ কেজি।

ব্রিটেনের দৈনিক সান জানাচ্ছে, সাপটির দেহের সবচেয়ে মোটা অংশটির ব্যাস হচ্ছে প্রায় এক মিটার।

গুহাটিতে নির্মাণ কাজের জন্য নিয়ন্ত্রিত বিস্ফোরণ ঘটানোর সময় কর্মীরা সাপটি দেখতে পান। ক্রেনে করে সাপটিকে তোলা হয় এবং এর একটি ভিডিও ইউটিউবে পোস্ট করা হয়।

সাপটিকে এতে মৃত অবস্থায় দেখা গেছে। অভিযোগ করা হয়, নির্মাণকর্মীরা তাকে মেরে ফেলেছে।

তবে অন্য অনেকে বলছেন, সম্ভবত বিস্ফোরণের কারণে পাথর মাথায় পড়ে সাপটি মারা গেছে, কারণ ভিডিওতে তার মাথা থেঁতলানো দেখাচ্ছিল।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest

শ্যামনগর প্রতিনিধি: শ্যামনগরের বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের মাধ্যমিক পর্যায়ের বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের রমরমা কোচিং ব্যবসায় দিশেহারা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। এলাকা সুত্রে প্রকাশ, তপোবন বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক স্বরজিৎ মন্ডল, আড়পাঙ্গাশিয়া পি,এন, হাইস্কুলের সহকারীশিক্ষক পরিমল মন্ডল সরকারের নির্দেশনা উপেক্ষা করে কোচিং/প্রাইভেট পড়ানো বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন। কোচিং/ প্রাইভেট পড়ানোর ফলে ছাত্র ছাত্রীরা বিদ্যালয়ের ক্লাস করতে অনিহা প্রকাশ করছে। গরীব ও অসহায় অভিভাবকরা প্রাইভেট টিউটরদের টাকা যোগাতে হিমশিম খাচ্ছে। অনেক অভিভাবক দৈনন্দিন ক্ষেত মজুরীর/ দিন মজুরীর টাকা দিয়ে চাউল না কিনে ছেলে মেয়েদের প্রাইভেট পড়ানোর টাকা দিতে বাধ্য হচ্ছে। প্রাইভেট টিউটরদের চাপে তারা এহেন দুঃখ জনক কাজটি করেছে। সকাল সন্ধ্যায় বিভিন্ন ব্যাচে ঐ সমস্ত শিক্ষকরা কয়েক শত ছাত্র-ছাত্রীদের প্রাইভেট পড়ান। প্রাইভেট না পড়লে নম্বর কম দেওয়া, পরীক্ষায় পাস করা কঠিন হয়ে পড়ে। ছাত্র-ছাত্রীরা প্রাইভেট পড়ার সময় ব্যতীত অন্যান্য সময় বিভিন্ন খেলা ধুলা করে সময় কাটায়। ফলে লেখা পড়ার পরিবেশ দারুন ভাবে ব্যাহত হচ্ছে। সরকারের নীতিমালায় প্রাইভেট/ কোচিং ব্যবসার বিরুদ্ধে কঠোরতা  থাকলে ও তা মানা হচ্ছে না। এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করা হচ্ছে।

0 মন্তব্য
0 FacebookTwitterGoogle +Pinterest